× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার

ডেঙ্গুতে প্রতি ঘণ্টায় শতাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ৮ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:৪৮

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে প্রতি ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন শতাধিক রোগী। এর সঙ্গে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। রাজধানীসহ সারাদেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৪২৮ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যা গত কয়েক দিনের ২৪ ঘণ্টার রেকর্ডকে অতিক্রম করেছে। রাজধানী ঢাকাতেই এক হাজার ২৭৫জন রোগী এবং ঢাকার বাইরে এক হাজার ১১৫৩ জন ভর্তি হয়েছেন বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে। গত ২৪ ঘণ্টার হিসাবে ঘণ্টায় ভর্তি হচ্ছেন ১০১ জনের উপরে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এ তথ্য জানা গেছে। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩২ হাজার ৩৪০জন।
বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা আরও কয়েকগুণ বেশি বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন। মৃতের সংখ্যা এ পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ২৩ জন বললেও বেসরকারি হিসাবে শতাধিক হবে । প্রতিদিন মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। গতকাল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনজন, মুগদা হাসপাতালে দুইজন, ইউনাইটেড হাসপাতালে একজনসহ সারা দেশে কমপক্ষে সাতজন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অধিদপ্তরের পরিসংখ্যান অনুসারে, আগস্ট মাসের এক সপ্তাহে ভর্তি হয়েছেন ১৫ হাজার ৮৭৯ জন। গত জুলাই মাসে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হন ১৬ হাজার ২৫৩ জন। এই সংখ্যা জুন মাসে ছিল এক হাজার ৮৮৪ জন। মে মাসে ১৯৩ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৩ হাজার ৬১০জন। বর্তমানে ভর্তি আছেন ৮ হাজার ৭০৭ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, এপ্রিলে দুইজন, জুনে তিনজন, জুলাই মাসে ১৫ জন এবং আগস্টে তিনজন মারা গেছে।
এদিকে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারালেন ঢাকার সরকারি তিতুমীর কলেজের এক ছাত্র। ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে মেহেদী হাসান নামে অর্থনীতির স্নাতকোত্তরের এই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। অন্যদিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গু আক্রান্ত আওলাদ হোসেন নামে আরেক জন মারা গেছেন। তিনি তৈরি পোশাক ব্যবসায়ী ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পশ্চিমবাজি কসবা গ্রামে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. নাছির উদ্দিন জানান, আওলাদ হোসেন পাঁচ দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন। মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে তাকে এই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৬০১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর সোয়া ৪টার দিকে তিনি মারা যান। গতকাল বিকালে আছিয়া বেগম (৩৯) নামের আরও এক রোগীর মৃত্যু হয়। এর আগে বেলা আড়াইটায় মারা যান আমেনা বেগম (৬০)।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর