× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার

ঋণ প্রবাহ বাড়ানোর সঙ্গে কমাতে হবে সুদহার: এফবিসিসিআই

দেশ বিদেশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | ৯ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, ৯:৫০

২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৫৪ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে সরকার। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সহজলভ্য ঋণ প্রবাহ, ঋণের সুদের হার হ্রাস, নীতি সহায়তা এবং বন্দরের দক্ষতা ও সেবার মান বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই। এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এফবিসিসিআই জানায়, সরকার ২০১৯-২০ অর্থবছরের রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ৫৪ বিলিয়ন ডলার নির্ধারণ করেছে, যা গত বছরের অর্জনের উপর ভিত্তি করে ১৫.২০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। এফবিসিসিআই মনে করে বর্তমান বৈশ্বিক বাজার পরিস্থিতি, সরকারের বাণিজ্য সহায়ক নীতি, রপ্তানিকারকদের সরবরাহ দক্ষতা ও ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী শিল্প কারখানার নিরাপত্তা পরিবেশ নিশ্চিত করার প্রেক্ষিতে এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব। তবে কাঙ্ক্ষিত রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের স্বার্থে উৎপাদন ব্যয় কমানো ও প্রতিযোগিতা সক্ষমতা বাড়াতে রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলসহ (ইডিএফ) ব্যাংক সুদের হার হ্রাস, বেসরকারি খাতে সহজলভ্য ঋণ প্রবাহ, ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজের ক্ষেত্রে সব ধরনের নীতি সহায়তা, চট্টগ্রাম বন্দরসহ সব বন্দরের সক্ষমতা ও সেবার মান আরো বৃদ্ধিসহ সর্বোপরি রপ্তানি নীতিতে উল্লেখিত সুযোগ-সুবিধাসমূহ নিশ্চিত করা জরুরি। সংগঠনটি বলছে, সরকার বৈদেশিক বাণিজ্যকে সহায়তার লক্ষ্যে সরকার ইতিমধ্যে বাণিজ্য সহায়ক (ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন) কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। ইজ অব ডুয়িং বিজনেস ও রপ্তানি উন্নয়নের স্বার্থে এ কার্যক্রম আরো জোরদার করা প্রয়োজন।
এ বছর নতুন ১৩টি পণ্য রপ্তানির আয়ের বিপরীতে ‘নগদ সহায়তা’ দেয়ার সিদ্ধান্ত কাঙ্ক্ষিত রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ক্ষেত্রে বিশেষ সহায়ক হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর