× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার

ফাঁসাতে গিয়ে ফাঁসলেন চুনু

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ১০ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:১১

ফাঁসাতে গিয়ে ফাঁসলেন সিলেটের ইয়াবা ব্যবসায়ী চুনু মিয়া। তার সাজানো ফাঁদে প্রথমে পুলিশ মুদি দোকানিকে আটক করলেও পরে  সত্য জেনে চুনুকে আটক করেছে। আর তাকে আটকের মাধ্যমে বেরিয়ে এসেছে আসল তথ্য। আটক চুনু সিলেট সদর উপজেলার কান্দিগাঁও ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ও পূর্ব দর্শা গ্রামের আলকাছ মিয়ার ছেলে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন- মহানগর পুলিশের জালালাবাদ থানার মাসুকগঞ্জ বাজারে সমপ্রতি কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশে বাজারের ব্যবসায়ী প্রতিবন্ধী সোহেল আহমদকে মাদক ব্যবসায়ীদের নাম ধরে বক্তৃতা দেন এবং মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ী চুনু ও তার সহযোগীরা সোহেলের দোকানে ইয়াবা রেখে পুলিশে খবর দিয়ে ধরি দেয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শহরতলির কান্দিগাঁও ইউনিয়নের মাসুকগঞ্জ বাজারের ইরশাদ মিয়ার পুত্র প্রতিবন্ধী সোহেল আহমদের লিপি স্টোর নামের মোদি দোকানে ডারবি সিগারেটের প্যাকেটে ১০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট দোকানের ফ্রিজের নিচে রেখে জালালাবাদ থানা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ খবর পেয়ে মাসুকগঞ্জ বাজার প্রতিবন্ধী সোহেলের দোকান তল্লাশি করে ফ্রিজের নিচ থেকে সিগারেটের প্যাকেপটসহ সোহেলকে থানায় নিয়ে যায়।
ঘটনার পর স্থানীয় এলাকার পঞ্চায়েত কমিটি ও বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দ জালালাবাদ থানায় গিয়ে ওসি অকিল উদ্দিনের সঙ্গে দেখা করে বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যবসায়ী সোহেল একজন সৎ ভালো মানুষ। বিষয়টি তদন্ত করে দেখার অনুরোধ জানান। পরে ওসি অকিল উদ্দিন ঘটনাটি নিজে তদন্ত করে শুক্রবার ভোরে মাসুকগঞ্জ বাজার এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী আমিনের আস্তানায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার মূল হোতা মাদক ব্যাবসায়ী ইয়াবা ব্যবসায়ী চুনু মিয়াকে আটক করে। পরে পুলিশের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে চুনু মিয়া স্বীকার করে সে নিজে দোকানে ইয়াবা রেখে সোহেলকে ফাঁসাতে চেয়েছিল। এরপর জালালাবাদ থানা হাজত থেকে নিরপরাধ প্রতিবন্ধী ব্যবসায়ী সোহেলকে স্বজনদের জিম্মায় দিয়ে মাদক ব্যবসায়ী মাদক সম্রাট চুনুর বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা করে পুলিশ। স্থানীয় বাজারের ব্যাবসায়ী ফটিক মিয়া ও মোক্তাদির সহ কয়েকজন বলেন, আমরা ব্যবসায়ীসহ এলাকাবাসী মিলে কয়েকদিন আগে মাদক ব্যবসায়ী জামাল, জমির হোসেনকে মাদকসহ পুলিশে দিয়েছি। ওসি অকিল উদ্দিন জানিয়েছেন- নিরপরাধ প্রতিবন্ধী ব্যবসায়ী সোহেলকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করে মাদক ব্যবসায়ী চুনু। পরে পুলিশ বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে আটক করে। আর ব্যবসায়ী সোহেলকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর