× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখতে প্রত্যয়ী সালমারা

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৬ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, ৯:০২

সবশেষ নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। নেদারল্যান্ডসে শেষ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে তারা সেবার শীর্ষে থেকেই নিশ্চিত করেছিল বিশ্ব আসরে খেলা।  এবার ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব খেলতে স্কটল্যান্ড গেছে বাংলাদেশ নারী দল। গতকাল সকাল ১০টায় দেশ ছাড়ে সালমা খাতুনের দল। এবারও দলটির লক্ষ্য চ্যাম্পিয়ন হওয়া। দলের অধিনায়ক সালমাই নয় সিনিয়র ক্রিকেটার জাহানারা আলমও একই হুংকার দিয়েছেন। যদিও কঠিন কন্ডিশনে এই লক্ষ্য সহজ হবে না বলেও মনে করেন তারা। তবে তিনটি বিশ্বকাপ খেলে ফেলা টাইগ্রেসরা নিজেদের অভিজ্ঞতার সবটাই উজাড় করে দিতে প্রস্তুত। সবাই যখন ছুটিতে ব্যস্ত তখন তারা ক্যাম্পেই ঈদ কাটিয়েছেন অনুশীলন করে। বলার অপেক্ষা রাখে না কতটা সিরিয়াস তারা। দেশ ছাড়ার আগে দৈনিক মানবজমিনকে সালমা বলেন, ‘আমাদের প্রস্তুতি ভালো হয়েছে। ঈদের দিনও ছুটি না কাটিয়ে ক্যাম্পে ছিলাম। দলের সবাই ভীষণ সিরিয়াস। জানি স্কটল্যান্ডে কন্ডিশন কঠিন হবে। তবে গেল বিশ্বকাপেও আমরা এমন কন্ডিশনে বাছাই পর্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে। এবারও সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে যাচ্ছি। আশা করি চ্যাম্পিয়ন হয়েই বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার সুযোগ করে নিবো।’
এবার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে অংশ  নেবে ৮টি দল। আগামী ৩১শে আগস্ট স্কটল্যান্ডে শুরু হবে বাছাই পর্বের মূল লড়াই।  যেখান থেকে শীর্ষ দুই দল সুযোগ পাবে ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া নারী টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। বাছাইপর্বের উদ্বোধনী ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ পাপুয়া নিউগিনি। ‘এ’ গ্রুপে বাংলাদেশে সঙ্গে রয়েছে স্বাগতিক স্কটল্যান্ড, থাইল্যান্ড ও যুক্তরষ্ট্র। হাঁটুর ইনজুরির কারণে ছিটকে পড়েছেন অলরাউন্ডার রুমানা আহমদ। তাই একটু বাড়তি চিন্তা রয়েছে অধিনায়কের।  তবে দলকে ভারসাম্যপূর্ণই মনে করেন সালমা। তিনি বলেন, ‘দলে সিনিয়র জুনিয়রের কম্বিনেশনটা ভালো হয়েছে। আমাদের মূল শক্তি ব্যাটিং ও বোলিং। হ্যা, ফিল্ডিংয়ে দুর্বলতা আছে। দুর্বলতা কাটাতে আমরা এবার ফিল্ডিংয়ে প্রচুর সময় দিয়েছি। এমনকি ঈদের দিনও আমরা ফিল্ডিং অনুশীলন করেছি।’ সালমা বলেন, ‘রুমানার বিকল্প আসলে হয়নি। ওর জায়গাতে কাকে খেলাবো  সেই চিন্তা আমার থাকবেই। তবে আমার বিশ্বাস দলে যারা জায়গা পেয়েছে তারা নিজেদের সেরাটা দিয়েই খেলবে।’
প্রতিপক্ষ নয় নিজেদের নিয়ে ভাবছেন জাহানারা
রুমানা না থাকায় অনেক বেশি দায়িত্ব এখন দলের আরেক সিনিয়র ক্রিকেটার জাহানারা আলমের ওপর। বিশেষ করে সাবেক অধিনায়ক চান নিজের অভিজ্ঞতাও দলের সঙ্গে শেয়ার করতে। কারণ প্রতিপক্ষ দলগুলো আগের তুলনাতে বেশ এগিয়ে গেছে বলেই মনে করেন তিনি। তবে নিজেদেরও পিছিয়ে রাখছেন না। প্রতিপক্ষ নয়, তার ভাবনাতে এখন নিজেদের সেরাটাই খেলা। তিনি বলেন, ‘আসলে আমাদের যে প্রতিপক্ষ পাপুয়া নিউগিনি, স্কটল্যান্ড তারা কিন্তু এখন বেশ এগিয়ে গেছে। আমি যতটা জানি যে আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে স্কটল্যান্ডের নারী দল নিয়মিত খেলে। ওরা আমাদের চেয়ে বেশি ম্যাচ খেলে এখন। তবে আমি প্রতিপক্ষের চেয়ে নিজেদের নিয়েই ভাবছি। কারণ আমরা এরই মধ্যে তিনবার বিশ্বকাপে খেলেছি। এই জায়গাাতে ওদের চেয়ে আমাদের অভিজ্ঞতা  অনেকটাই বেশি। যে কারণে আমি মনে করি নিজেদের আত্মবিশ্বাসকেই কাজে লাগাতে হবে।
আমরা এর আগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। এবারও সেই লক্ষ্য আমাদের। তবে  তিন বিভাগে ভালো করতে পারলেই দল জিতবে সেই আশা করা যায়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর