× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার
উয়েফা সুপার কাপ লিভারপুল ২-২ চেলসি

ইস্তাম্বুলে গোলরক্ষকই ‘নায়ক’ অলরেডদের

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৬ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, ৯:০৩

ইস্তাম্বুলে সুখস্মৃতি ছিল লিভারপুলের। এতে ছিল লিভারপুলের গোলরক্ষকের বীরত্বগাথা। এবার গল্পটায় যুক্ত হলো আরো এক অধ্যায়। এতেও নায়ক অলরেডদের গোলরক্ষক। উয়েফা সুপার কাপে চেলসিকে টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে লিভারপুল। বুধবার ইস্তাম্বুলে দু’দলের ১২০ মিনিটের লড়াই শেষ হয় ২-২ সমতায়। টাইব্রেকেও এক পর্যায়ে চলছিল ৪-৪ সমতা। লিভারপুলের পঞ্চম শটে মোহাম্মদ সালাহ লক্ষ্যভেদ করলে ব্যবধান দাঁড়ায় ৫-৪এ। আর ‘অল ব্লু’ খ্যাত চেলসির শেষ শটে তরুণ স্ট্রাইকার আব্রাহামের প্রচেষ্টা রুখে দেন লিভারপুলের নতুন রিক্রুট স্প্যানিয়ার্ড গোলরক্ষক আদ্রিয়ান।
তুরস্কের এই শহরেই ২০০৫ চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনালে এসি মিলানের বিপক্ষে নাটকীয় জয়ে শিরোপা ঘরে তুলেছিল অলরেড খ্যাত লিভারপুল। ম্যাচের একপর্যায়ে পরিষ্কার ৩-০ গোলে পিছিয়ে থাকা লিভারপুল ৩-৩ সমতা  শেষে ম্যাচ নিয়ে যায় টাইব্রেকে। সেখানে লিভারপুলকে জয় এনে দেন গোলরক্ষক জের্জি দুদেক। এ পোলিশ গোলরক্ষক এসি মিলানের ইউক্রেনিয়ান ফরোয়ার্ড আন্দ্রে শেভচেঙ্কোর পেনাল্টিটা ঠেকিয়েছিলেন পা দিয়ে। সে ম্যাচটি ইতিহাসে তকমা পেয়েছে ‘মিরাকল অব ইস্তাম্বুল’। তুরস্কের এ শহরেই লিভারপুলকে উয়েফা সুপার কাপ জেতালেন আরেক গোলরক্ষক আদ্রিয়ান। চেলসির শেষ শটটি তিনি ঠেকান পা দিয়েই।
ইউরোপিয়ান ফুটবল প্রতিযোগিতায় লিভারপুল-চেলসির এটি ১১তম সাক্ষাত। এতেও রচিত হয়েছে আলাদা রেকর্ড। ইউরোপিয়ান ফুটবলে কোনো নির্দিষ্ট দেশের দুই দলের সবেচেয়ে বেশিবার মুখোমুখি হওয়ার রেকর্ড এটি।
ইস্তাম্বুলে এবারের অল ইংলিশ উয়েফা সুপার কাপ  দ্বৈরথের শুরুতে এগিয়ে যায় ইউরোপা লীগ জয়ী চেলসি। ৩৬তম মিনিটে গোল আদায় করেন চেলসির ফরাসি স্ট্রাইকার অলিভিয়ের জিরু। দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে গোল নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জয়ী লিভারপুলকে সমতায় ফেরান সাদিও মানে। উয়েফা সুপার কাপে গত ১৩ বছরে প্রথম আফ্রিকান খেলোয়াড় হিসেবে গোল পেলেন তিনি। সবশেষ ২০০৬-এ গোল পেয়েছিলেন বার্সেলোনার বিপক্ষে সেভিয়ার মালিয়ান স্ট্রাইকার ফ্রেদেরিক উমর কানুটি। ৯০ মিনিটের খেলা ১-১ গোলের সমতা শেষে অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় খেলা। ৯৫তম মিনিটে দারুণ শটে নিজের ও দলের দ্বিতীয় গোল পান সেনেগালিজ ফরোয়ার্ড মানে। ১০১তম মিনিটে ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনহোর পেনাল্টি গোলে সমতায় ফেরে চেলসি।
লিভারপুলে গোলরক্ষক আদ্রিয়ানের শুরুটা হলো স্বপ্নের মতোই। গত সপ্তাহে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে নিজেদের সূচনা ম্যাচে যথারীতি নিয়মিত একাদশে ছিলেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার। কিন্তু ম্যাচের প্রথমার্ধেই চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন অ্যালিসন। এতে সুযোগ আসে আদ্রিয়ানের।
১০ দিন আগেও তার কোনো ক্লাব ছিল না। ২০১৩ সালে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল বেতিস থেকে ইংল্যান্ডের ওয়েস্ট হ্যামে পাড়ি দেন আদ্রিয়ান। গত মৌসুম শেষে আদ্রিয়ানের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যায় ওয়েস্ট হ্যামের। আর গত আগস্টে ফ্রি ট্রান্সফারে আদ্রিয়ানকে দলে ভেড়ায় লিভারপুল।  
এ নিয়ে চতুর্থবার উয়েফা সুপার কাপ জিতলো লিভারপুল। তাদের চেয়ে এ শিরোপা শুধু বার্সেলোনা ও এসি মিলানই বেশি সংখ্যকবার (৫) জিতেছে। অন্যদিকে টানা তিন সুপার কাপ (২০১২, ২০১৩, ২০১৯) দ্বৈরথে হার দেখলো চেলসি। কেবল স্প্যানিয়ার্ড দুই দল বার্সেলোনা ও সেভিয়ার রয়েছে উয়েফা সুপার কাপে চারবার করে রানার্সআপ হওয়ার নজির।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর