× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার

বোনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষিত স্কুলছাত্রী

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী থেকে | ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:০৮

নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রী বোনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বার থানার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চরলক্ষ্মী মোস্তাননগর এলাকায় গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টায়। এলাকাবাসী জানায়, চর আলাউদ্দিনের মো. বাহার ও রাফিয়ার ৯ম শ্রেণির ছাত্রী বড় বোনের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার প্রাক্কালে অটোগাড়ি আটক করে অপহরণ করে নিয়ে গণধর্ষণ করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী সদর হাসপাতালে ২ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। ভিকটিম জানায়, প্রতিবেশী সোহেল, হোসেন কেরানি, চৌধুরী ও বেচু মহাজন তাকে অস্ত্রের মুখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। চরজব্বার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইব্রাহিম খলিল ১৬ই আগস্ট বিকালে মানবজমিনকে জানান, গণধর্ষণের ঘটনায় ওসি মো. সাহেদ হোসেনসহ ঘটনাস্থলে তদন্তে আছি। অভিযোগ সত্যি হলে আইন আইনের গতিতে চলবে। এনিয়ে আবারো গণধর্ষণের ঘটনায় নোয়াখালী শহরতলিতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রানা কোতোয়াল
১৮ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, ১১:৫৯

ভালো একটি ক্রস ফায়ার দরকার।

এম, শহীদ উল্যাহ্
১৬ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, ৯:৩৫

সুবর্ণচরে একের পর এক 'গণধর্ষণ'র ঘটনা ঘটছে; যা সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার চক্রান্ত বৈকি। এ ব্যাপারে সরকারের সর্বোচ্চ মহলের সুদৃষ্টি ও হস্তক্ষেপ প্রত্যাশা করছি।

রিপন
১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৯:১২

সাহেদ কেবল মিথ্যে বলে নি। সবই যার যার নিজস্ব গতিতে চলছে। কী শূন্যে, কী ধরাধামে বাংলাদেশে। এখানে আইন আইনের গতিতে চলে, এরই মাঝ দিয়ে ধর্ষণ চলে ধর্ষণের গতিতে, আইন আদালত চলে তার নিজের কুম্ভকর্ণীয় গতিতে, দেখেও দেখে না; জেগে জেগেই ঘুমায়! ধর্ষিতা হয়ে জগতজুড়ে প্রকাশ হয়ে গেলেও বলা হয় অভিযোগ সত্য হলে ... তা তো বটেই, অভিযোগ সত্য হলেই তো মাঠে নামবে আইন অপপ্রয়োগকারীরা। তার আগে কি মাঠে নামা যায় না? এ ...ই ....ই ....পেট্রল ডিউটি বলে যে একটা বিষয় জগতজুড়ে চালু আছে তা কি জানা আছে বাংলাদেশ পুলিশের এবং বাংলাদেশের সাংবাদিকদের? লেখার আগে খানিকটা পড়াশোনা করতে কি বাধে সাংবাদিকদের? অপরাধ দমনে-নিয়ন্ত্রণে পেট্রল ডিউটি যে জরুরি সেই ডিউটিটির কী বন্দোবস্ত মাঠে মোতায়েন রেখেছে সুবর্ণচর পুলিশ, সেই প্রশ্নটি সাহেদকে করতে কি সাংবাদিক শরমে মরমে মরে যাচ্ছিল? রাষ্ট্র একা সরকারের পক্ষে পরিচালনা অসম্ভব, তা যে সরকারই ক্ষমতায় থাকুক। সকল মহলের সমন্বিত সচেতন প্রয়াসেই রাষ্ট্র চলে। সাংবাদিক সেই সমন্বিত প্রয়াসে নিজের ভূমিকাটুকু রাখবে না, কলমের সা্মান্যতম আঁচড়চটুকুও লাগাবে না, - অসঙ্গতিগুলো জনসমক্ষে তুলে মেলে ধরতে; আর আশা করবে সব ঠিকঠাক চলবে? পরিবর্তন সূচিত হবে? ধর্ষণের মতো ঘৃণার্হ অপরাধ কেবল পুলিশ একাই নির্মূল করে ফেলবে? দুরাশা!

অন্যান্য খবর