× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার

অবসর ইস্যুতে মাশরাফির সঙ্গে বৈঠক করবেন পাপন

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:৩৮

দেশবরেণ্য ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজাকে একটা স্মরণীয় বিদায় উপহার দিতে চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, এ বিষয়ে শিগগিরই মাশরাফির সঙ্গে আলোচনায় বসছেন তিনি। গতকাল সংবাদমাধ্যমকে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমরা জানি না সে কী চিন্তা করছে অবসরের ব্যাপারে। সে ঈদ কাটিয়ে ফিরুক, এরপর আমরা তিন চার দিনের মধ্যে তার সঙ্গে বসবো এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে আলাপ করবো।’
২০১৯ বিশ্বকাপে বল হাতে নিষ্প্রভ মাশরাফি সাকল্যে এক উইকেট পেয়েছিলেন। অধিনায়ক হিসেবেও খুব একটা ভালো হয়নি মাশরাফির পারফরম্যান্স। বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার পর তার অবসর নিয়ে জল্পনা শুরু হয়। তবে মাশরাফি নিজে এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত জানাননি। অবসরের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তার মন্তব্য ছিল, ‘আমার কাছে মনে হয় এখানেও পেশাদারিত্ব দেখানো উচিত। আমি এভাবেই দেখি। আমার জায়গাটা সবসময় পরিষ্কার। একজন খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপে আমি নিজের সেরাটা খেলতে পারিনি। অধিনায়ক হিসেবেও সেরাটা দিতে পারিনি। সবার প্রত্যাশা ছিল দল সেমিফাইনালে যাবে। আমরা সেখানেও ব্যর্থ। প্রশ্নগুলো আসতেই পারে। আমি এভাবেই দেখছি আসলে। এর বেশি ভাবার সুযোগও নেই।’
এরপর শ্রীলঙ্কার মাটিতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য দলের অন্য খেলোয়াড়দের সঙ্গে প্রস্তুতি শুরু করেন মাশরাফি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে চোটের কারণে সিরিজটি খেলা হয়নি তার। চলতি বছর এফটিপি অনুযায়ী বাংলাদেশের আর কোন ওয়ানডে নেই। আগামী সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট খেলবে টাইগাররা। ওই টেস্টের পরই আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে শুরু হবে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ। টেস্ট আর ত্রিদেশীয় সিরিজের সূচি এরই মধ্যে চূড়ান্ত হয়ে গেছে। দুটি সিরিজেই খেলছেন না মাশরাফি। কারণ চোটের কারণে দীর্ঘ দিন ধরেই সাদা পোশাকে অনুপস্থিত তিনি। বলতে গেলে এক রকম অবসরই নিয়েছেন টেস্ট থেকে। আর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন ২০১৭ সালে।
মাশরাফি অবসর নিয়ে অবশ্য অন্য পরিকল্পনা আছে বিসিবির। তিনি যদি অবসর নেয়ার কথা ভাবেন, তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এফটিপির বাইরে একটি ওয়ানডে আয়োজন করতে চায় বোর্ড। এই ওয়ানডে আয়োজনের পেছনে মোটা অঙ্কের খরচের ব্যাপার আছে বলে নিশ্চিত করেছে বিসিবির একটি ঘনিষ্ট সূত্র। ফলে মাশরাফির নিশ্চয়তা ছাড়া তারা এ পথে এগোতে পারছে না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিসিবির একজন কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার বলেন, ‘এটা আয়োজন করতে বড় ধরনের খরচের ব্যাপার আছে। জিম্বাবুয়েকেও রাজি করানোরও ব্যাপার আছে। যদি তারা রাজি হয় তাহলে বোর্ড ৬০ লাখ টাকার মতো বাজেট করবে। কিন্তু এসব উদ্যোগের আগে মাশরাফির মতটা জরুরি।’
বাংলাদেশের ক্রিকেট নক্ষত্র মাশরাফি ২১৭ ওয়ানডেতে ২৬৬ উইকেট ও ১৭৮৬ রান করেছেন। তার অধীনে আইসিসির টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ সাফল্য পেয়েছে বাংলাদেশ। তার অধিনায়কত্বেই ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল ও ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে উঠে টাইগাররা। বাম পায়ের হাঁটুতে মারাত্মক চোট নিয়েও দিনের পর দিন দলের সেবার করে গেছেন মাশরাফি। এমন একজন ক্রিকেটারের বিদায়টা যেন কোনো সুন্দর হয়, মনেপ্রাণে সেটাই চাইছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
শামীম
১৭ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৯:৫৩

মাশরাফির অবসর নেয়ার এটাই সবখেকে ভাল সময় তাই তার সম্মান থাকতে নিজে থেকেই সরে যাওয়া উচিৎ । তা না হলে বিসিবির উচিৎ তাকে বাদ দেওয়া ।

অন্যান্য খবর