× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্কুলছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে | ২৪ আগস্ট ২০১৯, শনিবার, ৮:১২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সদর উপজেলার ঘাটুরায় চতুর্থ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বর্তমানে সে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গত বৃহস্পতিবার সকালে এই ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, ৮ বছর বয়সী ওই ছাত্রীর পিতা এলাকায় গরুর দুধ বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করেন। প্রতিদিন সে গ্রামের কাজীবাড়ির কাজী পাভেলের ঘরে দুধ নিয়ে যেত। ওইদিন তার কাজ থাকায় স্কুলে যাওয়ার পথে মেয়েকে দিয়ে ওই বাড়িতে দুধ পাঠান তার মা। দুধ দিয়ে চলে আসার সময় কাজী পাভেল স্কুলছাত্রী ওই শিশুকে সিঁড়ি থেকে মুখ চেপে নিচতলার একটি কক্ষে নিয়ে যৌন নিপীড়ন করে। এ সময় কেউ একজন এসে দরজায় ধাক্কা দিলে শিশুটিকে ছেড়ে দেয় সে।
শিশুটির মা জানান, বাড়ি ফিরে কাঁদতে কাঁদতে সে আমাকে সবকিছু খুলে বলে। ঘটনাটি জানার পর পাভেল আমাদের হুমকি দেয় কাউকে যেন না জানাই। কিন্তু এলাকায় জানাজানির পর এবং রাতে মেয়ের শারীরিক অবস্থা খারাপ হলে ওইদিন রাত ৯টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করি। জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক জিনান রেজা জানান, শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পর বিস্তারিত জানা যাবে। তবে অভিযোগের ব্যাপারে বক্তব্য জানতে কাজী পাভেলের দু’টি মুঠোফোনে ফোন করলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন জানান, আমাদের কাছে ওই শিশুর পরিবার কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেনি। তবে খবর পেয়ে সদর হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত কাজী পাভেল (৩৫) ঘাটুরা গ্রামের কাজীবাড়ির মৃত কাজী আনু মিয়ার ছেলে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর