× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার

থাইল্যান্ডে প্রস্তুতি ক্যাম্প বক্সিংয়ের

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:৪৬

২০১০ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত এসএ গেমসের বক্সিংয়ে দুটি স্বর্ণ একটি রৌপ্য ও দুটি ব্রোঞ্জ জিতেছিল বাংলাদেশ। তবে গৌহাটিতে অনুষ্ঠিত গত আসরে মোটেও সুবিধা করতে পারেনি বক্সাররা। ডিসিপ্লিনটিতে স্বর্ণ তো দূরের কথা রৌপ্যও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। তবে নেপাল সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসে স্বর্ণপদক জিততে চায় বাংলাদেশ বক্সিং ফেডারেশন। তাই গেমসের আগে দু’মাসের জন্য থাইল্যান্ডে প্রশিক্ষণ ক্যাম্প করবে তারা।
শুধু তাই নয়, যুক্তরাষ্ট্র থেকে বক্সিং কোচও আনার চেষ্টা করছেন ফেডারেশনের কর্মকর্তারা।
আগামী ডিসেম্বরে নেপালে অনুষ্ঠিত হবে সাউথ এশিয়ান গেমসের (এসএ) ১২তম আসর। এই আসরে অংশ নেয়ার আগে দলের প্রস্তুতির বিষয়ে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম তুহিন বলেন, ‘এসএ গেমসে স্বর্ণপদক জেতার জন্য যা প্রয়োজন আমরা তাই করবো। ছেলে মেয়েদের থাইল্যান্ডে নিবীড় প্রশিক্ষণ করানো হবে। সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন কেবল তাদের যাওয়ার অপেক্ষা।’ এর আগে ২০১০ সালে ঢাকা এসএ গেমসের আগেও থাইল্যান্ডে প্রশিক্ষণ করানো হয়েছিল বক্সারদের। উন্নত প্রশিক্ষণের ভালো ফলও পেয়েছিল বাংলাদেশ। সেবার দু’টি স্বর্ণ, একটি রুপা ও দু’টি ব্রোঞ্জপদক জিতেছিলেন লাল সবুজের বক্সাররা। তবে গৌহাটিতে চারটি ব্রোঞ্জ জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। তাই ঢাকা এসএ গেমসের গৌরব ফিরিয়ে আনতে মরিয়া বক্সিং ফেডারেশন। ৯ বক্সারসহ ১৫ জনের একটি দল দু’মাসের জন্য নিবীড় ক্যাম্প করতে যাবেন থাইল্যান্ডে। পুরুষদের ৪৯ কেজিতে সজীব হোসেন, ৫২ কেজিতে আরিফুল ইসলাম, ৫৬ কেজিতে রবিন মিয়া, ৬০ কেজিতে সুর কৃষ্ণ চাকমা, ৬৪ কেজিতে আল আমিন, ৬৯ কেজিতে আবদুর রহিম ও ৭৫ কেজিতে আরিফ হোসেন এবং নারী বিভাগে ৫৪ কেজিতে আনিতা ইসলাম তানিয়া ও ৫৭ কেজিতে শামীমা আক্তারকে নির্বাচন করা হয়েছে। বক্সার নির্বাচন প্রসঙ্গে তুহিন বলেন, ‘তিনমাসের আবাসিক ক্যাম্পের পর আমরা সামগ্রিক বিবেচনায় এই ৯ জনকে নির্বাচিত করেছি। যেখানে কোচ, নির্বাচকদের মতামত অগ্রগন্য ছিল।’
৯ বক্সারের সঙ্গে আরও তিনজন যাবেন স্ট্যান্ডবাই হিসেবে। এছাড়া দলের সঙ্গে যাচ্ছেন প্রধান কোচ ইউক্রেনের জেদেভিচ ও স্থানীয় কোচ মহিউদ্দিন আহমেদ মহি। আগে ঢাকায় আসবেন জেদেভিচ। এরপর যাবেন থাইল্যান্ডে। তুহিন বলেন, ‘এসএ গেমসে স্বর্ণ পুনরুদ্ধার করতে বদ্ধ পরিকর আমরা। তাই বক্সারদের উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য ইউক্রেন থেকে কোচ আনা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, খরচা বেশি হলেও থাইল্যান্ডে নিবীড় প্রশিক্ষণে পাঠানো হচ্ছে বক্সারদের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর