× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার
বাছাই পর্বে টানা দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

বিশ্বকাপে সালমাদের গ্রুপে ভারত-অস্ট্রেলিয়া

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:৪৯

মেয়েদের ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে দাপট দেখিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলো বাংলাদেশ। শনিবার স্কটল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ফাইনালে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে ৭০ রানে জয় কুড়ায় সালমা বাহিনী। বিশ্বকাপের মূল পর্বে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে জাহানারা-সালমাদের। গতকাল ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি ‘এ’ গ্রুপে তাদের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া, ভারত, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা। অন্যদিকে ‘বি’ গ্রুপে লড়বে ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, পাকিস্তান ও থাইল্যান্ড। আগামী বছরের ২১শে ফেব্রুয়ারি অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হবে ২০২০ নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। টুর্নামেন্ট চলবে ৮ই মার্চ পর্যন্ত। ২৪শে ফেব্রুয়ারি পার্থের ওয়াকায় বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচ খেলবে ভারতের বিপক্ষে।
১০ দলের মধ্যে ৮টি দল সরাসরি অংশ নিচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। বাছাইপর্ব পেরিয়ে এসেছে বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ড। বাছাই পর্বে দুর্দান্ত পারফরম করে টাইগ্রেসরা। ফাইনাল নিশ্চিত করে টানা চতুর্থবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের টিকেট চূড়ান্ত করেছিল বাংলাদেশ। শনিবার ফাইনালে থাইল্যান্ডকে ৭০ রানে উড়িয়ে অপরাজিত থেকে বাছাইপর্ব শেষ করে সালমা খাতুনের দল। আর ফাইনাল শেষে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সালমা খাতুন বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ায় আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পৌঁছে আমরা খুবই আনন্দিত। বিশ্ব মঞ্চে খেলাটা বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটকে আরো এগিয়ে নেবে। আমি আশা করি আমাদেরকে বিশ্বকাপে দেখে দেশের মেয়েরা ক্রিকেট খেলতে অনুপ্রাণিত হবে।’
ডান্ডির ফোর্টহিলে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। সানজিদা ইসলামের হাফসেঞ্চুরিতে ৫ উইকেটে ১৩০ রান সংগ্রহ করে টাইগ্রেসরা। বোলারদের নৈপুণ্যে থাইদের ইনিংস থামে ৬০ রানে। গত বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ফাইনালে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। এবারও তারা টুর্নামেন্ট সেরা হয়ে চতুর্থ বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছে।
বাছাইয়ের ফাইনালে আগে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু পায় বাংলাদেশ। প্রথম ১০ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৬৮ রান তোলেন মুর্শিদা খাতুন ও সানজিদা। ৪টি চারে ৩৩ রান করা মুর্শিদার বিদায়ে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। এরপর দলকে একাই টানেন সানজিদা। ৬টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৬০ বলে ৭১ রান করে অপরাজিত থাকেন ডানহাতি এই ব্যাটার। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এটি তার প্রথম ফিফটি। প্রথম ফিফটিতেই দেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিক বনে গেলেন সানজিদা। আগের রেকর্ডটি ছিল ফারজানার, ৬৬ রান। থাইল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন নাতায়া বুচাথাম। একটি করে পান সোরনারিন টিপোচ ও সুলিপরন লাওমি।
১৩১ রানের লক্ষ্য দিয়ে নাহিদা আক্তারের বোলিংয়ে শুভ সূচনা করে বাংলাদেশ। এই বাঁহাতি স্পিনার তার প্রথম দুই ওভারে উইকেট নেন। এই বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে পারেনি থাইল্যান্ড। ৭ রানে ২ উইকেট হারানো দলটি শেষ দিকে শায়লা শারমিনের ডানহাতি স্পিনে কাবু হয়। ১৭তম ওভারে ৪১ রানে ৭ উইকেট হারায় থাইল্যান্ড। কেবল ওংপাকা লিয়েঙ্গপ্রাসার্ট (১১) ও রাতানাপরন পাদুঙ্গলার্দ (১৫) দুই অঙ্কের ঘরে যেতে পেরেছেন। বাংলাদেশের পক্ষে দুটি করে উইকেট নেন নাহিদা ও শায়লা। একটি করে পান সালমা খাতুন ও খাদিজা তুল কুবরা। ম্যাচসেরা খেলোয়াড় হন সানজিদা। বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার আয়োজক কমিটির প্রধান নির্বাহী নিক হকলে বাংলাদেশ এবং থাইল্যান্ডের খেলা নিশ্চিত হওয়ার পর এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমরা অনেক আনন্দিত বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ডকে ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে স্বাগতম জানাতে পেরে। বাংলাদেশ এবং থাইল্যান্ডের অনেক সমর্থক অস্ট্রেলিয়ায় আছেন আর বাইরে থেকেও অনেকেই সমর্থন দেবেন এই দুই দলকে।’
ম্যাচের সূচি
২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২০: বাংলাদেশ-ভারত, পার্থ
২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২০: বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া, ক্যানবেরা
২৯শে ফেব্রুয়ারি ২০২০: বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড, মেলবোর্ন
২রা মার্চ ২০২০: বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা, মেলবোর্ন

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর