× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

জাপায় ক্ষমতার ভাগাভাগি যেভাবে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:৫৮

অবশেষে দেবর-ভাবী দু’পক্ষের সমঝোতায় স্বস্তি ফিরেছে জাতীয় পার্টিতে। আপাতত পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বে থাকছেন জিএম কাদের। সংসদে বিরোধী দলের নেতার দায়িত্ব পালন করবেন পার্টির সিনিয়র কো চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ। সামনের কাউন্সিলে পার্টির পরবর্তী নেতৃত্ব ঠিক করা হবে। শনিবার রাতে দুই পক্ষের ১০ নেতার অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে এমন সমঝোতার পর গতকাল দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে পার্টির সিদ্ধান্ত জানান মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙা। দুই পক্ষের সমঝোতা হওয়ায় রংপুর-৩ আসনে এরশাদপুত্র সাদকে দলীয় প্রার্থী করার ক্ষেত্রেও বিরোধ মিঠে গেছে। এ আসনে তাকেই দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে।
এদিকে রওশন এরশাদকে বিরোধী দলের নেতা করতে গতকালই স্পিকার বরাবর দলের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে।
শনিবার রাতে গুলশানের একটি ক্লাবে দুই পক্ষের ১০ নেতা বৈঠক করেন। তারা আলোচনা করে দুই পদ ভাগাভাগি করার সিদ্ধান্তে পৌঁছান। অনানুষ্ঠানিক ওই বৈঠকের সিদ্ধান্তের বিষয় জানাতে গতকাল সংবাদ সম্মেলনে মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, আগামী জাতীয় কাউন্সিল পর্যন্ত জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের এবং সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে থাকবেন রওশন এরশাদ। রাঙ্গা বলেন, শনিবার রাতের  বৈঠকে আমরা সমঝোতায় পৌঁছেছি যে, রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা এবং দলের আগামী কাউন্সিল পর্যন্ত জিএম কাদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন। আমি মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করবো।
এদিকে গতকাল মাগরিবের নামাজের বিরতির সময় জাপার সংসদ সদস্যরা স্পিকারের কার্যালয়ে গিয়ে তার হাতে চিঠিটি হস্তান্তর করেছেন। এরপর সংসদে অধিবেশন শুরু হলে শুন্য বিরোধী দলের আসনে বসেন রওশন এরশাদ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, বেগম রওশন এরশাদকে বিরোধী দলের নেতা করার জন্য স্পিকারকে চিঠি দেয়া হয়েছে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের স্বাক্ষরিত চিঠিতে জাতীয় পার্টির ২৫ জন সংসদ সদস্য স্বাক্ষর করেছেন। আমরা সর্বসম্মতভাবে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এর আগে সংসদ ভবনে জাতীয় পার্টির কয়েকজন সংসদ সদস্য বসে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেন। এর পর বিরোধী দলের চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা লবী থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের দলের সংসদ সদস্যরা সংসদীয় দলের সভায় বিরোধী দলের নেতা হিসেবে রওশন এরশাদকে মনোনয়ন করে স্পিকারের কাছে চিঠি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দলের পক্ষ থেকেও একটি চিঠি দিয়ে এটা জানিয়ে দেয়া হবে। তিনি বলেন, রোববারের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে রওশন এরশাদ বিরোধী দলীয় উপনেতা হিসেবে যোগ দিয়েছেন। বিরোধী দলের উপনেতা কে হবেন এমন প্রশ্নে জাপা মহাসচিব বলেন, বিরোধী দলের নেতা মনোনিত হওয়ার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেবেন কে হবেন বিরোধী দলের উপনেতা। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে কোন বিরোধ নেই। গেইম ইজ ওভার। মশিউর রহমান রাঙ্গা জানান, গত শনিবার সর্বসম্মতিক্রমে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদের দায়িত্ব পালন করবেন। আর সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বেগম রওশন এরশাদ। রংপুরের উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন এইচ এম এরশাদের পুত্র রাহগির আল মাহে সাদ।
সাংবাদিকদের জাপা মহাসচিব আরও বলেন, জাপার মধ্যে সাময়িকভাবে যে বিরোধ সৃষ্টি হয়েছিল তা মিটে গেছে। আমরা সর্বসম্মতিক্রমে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। রংপুর-৩ আসনে সাদ এরশাদকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। ইসিতে দু’পক্ষ থেকে যে চিঠি দেয়া হয়েছে তা তুলে নেয়া হবে এবং দলের সিদ্ধান্ত ইসিতে জানিয়ে দেয়া হবে। এসময় তাঁর সঙ্গে দলের এমপি মুজিবুল হক চুন্নু, কাজী ফিরোজ রশীদ এবং আবু হোসেন বাবলা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে রোববার দুপুর ১টায় জাতীয় পার্টির সংসদীয় কমিটির যে বৈঠক হবার কথা থাকলেও সেটি হয়নি। গত কয়েকদিন আগে জাতীয় পার্টির কে হবেন চেয়ারম্যান বা বিরোধী দলীয় উপনেতা তা নিয়ে দলের মধ্যে দুটি বলয় তৈরি হয়। রওশন এরশাদের পক্ষ থেকে দলটির সাবেক মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু ও ফখরুল ইমামসহ কয়েকজন রওশন এরশাদকে চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে মনোনীত করার জন্য স্পিকার বরাবর চিঠি দেন। এমনকি চেয়ারম্যান হিসেবে রওশন এরশাদের নাম দিয়ে নির্বাচন কমিশনেও চিঠি পাঠান তারা। অপর দিকে কাজী ফিরোজ রশীদ,আবু হোসেন বাবলাসহ প্রায় ১৪-১৫ এমপি জিএম কাদেরকে বিরোধী দলীয় নেতা করার তৎপরতায় উঠে পড়ে লাগেন। সব মিলিয়ে বিরোধী  দল জাতীয় পার্টির বর্তমানে ২৫ জন এমপি আছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর