× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

মমতাকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরামর্শ বিজেপি বিধায়কের

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৯:৩৬

জাতীয় নাগরিকপঞ্জী (এনআরসি) নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন তাতে ক্ষিপ্ত বিজেপি নেতারা। শনিবার উত্তর প্রদেশের বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিং  বলেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি বাংলাদেশীদের নিয়ে রাজনীতি করতে চান তবে তার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টা করা উচিত। সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, বিজেপি বিধায়ক বলেছেন, মমতার দুর্দিন আসন্ন। এখনও তিনি তার ভাষাকে সংযত করার পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি বলেছেন, তিনি যদি বাংলাদেশীদের সমর্থন নিয়েই রাজনীতি করতে চান তবে তার বাংলাদেশে যাওয়া উচিত। আর তার যদি সাহস থাকে তবে সেখানে গিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হোন। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপচারিতায় সুরেন্দ্র সিং আরও বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি চালু হবেই। যারা ভারতীয় নাগরিকত্ব হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করতে পারবেন না তাদের সম্মানের সঙ্গে নিজের দেশে ফেরত পাঠানো হবে। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি নিয়ে বলতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক রামায়ণের প্রসঙ্গ টেনে বলেছেন, শ্রীলঙ্কার মানুষ হনুমানজিকে সেখানে প্রবেশ করতে দিতে চাননি।
কিন্তু হনুমানজি সেখানে গিয়েছিলেন। তেমনি যোগী আদিত্যনাথ এবং অমিত শাহ পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করেছিলেন এবং গত লোকসভা  নির্বাচনে অনেক আসন পেয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লঙ্কিনী আখ্যায়িত করে সুরেন্দ্র সিং বলেছেন, সেখানে রামের প্রবেশ ঘটেছে। তাই পরিবর্তন হবেই। আর তারপরেই সেখানে চালু করা হবে এনআরসি। রাজ্যে থাকা সব বাংলাদেশিকে দুই প্যাকেট খাবার হাতে ধরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। আসামে এনআরসি চালুর সময় থেকেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতিবাদে মুখর হয়েছেন। রাজ্যে এনআরসি চালুর চেষ্টা হলে তিনি যে কোনভাবেই মানবেন না সে কথাও বলেছেন। গত বৃহস্পতিবার এনআরসির প্রতিবাদে উত্তর কলকাতায় এক পদযাত্রায় অংশ নেয়ার পর জনসভায় দাঁড়িয়ে মমতা ঘোষণা করেছেন, প্রাণ থাকতে তিনি পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি চালু করতে দেবেন না। ক্ষমতায় না থাকলেও তিনি সেটা হতে দেবেন না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
shiblik
১২ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, ৭:১৯

ভারতীও নেতাদের কথাবার্তার সাথে জঙ্গি লিডারদের কথার style-এর মিল আছে।

kamal
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ১২:২৯

জনাব সুরেন্দ্র সিং আপনি বিধায়ক হয়ে বাংলাদেশ সম্পর্কে কথা বলে প্রটোকল লংঙ্ঘন করেছেন, আর মনে রাখবেন দক্ষিন এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ যুদ্ধ করে স্বাধীনতা লাভ করেছে, ব্রিটিশ পার্লামেন্ট এ্যাক্ট এর মাধ্যমে নয় ।

Md Harun al Rashid
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ১২:২৮

প্রিয় মহাশয়, এটা ভূ-রাজনৈতিক অশিষ্টাচার ও উগ্র জাতীয়তাবাদ জনিত ব্যধি। যৌক্তিক রাজনৈতিক চর্চার অভাব ও প্রতিবেশি রাষ্ট্রের মর্যাদা ও সার্বভৌমত্বের প্রতি উদ্ধোত্যপূর্ন মানষিক দন্যতা প্রদর্শন। নিজেদের গৃহ বিবাদ নিজেদের দেশের মধ্যে রাখুন।

Amir
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ১০:২২

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার যোগ্য অনেক লোক বাংলাদেশেই আছে!

অন্যান্য খবর