× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার

শৈলকুপায় সর্প দংশনে সহোদরের মৃত্যু

বাংলারজমিন

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি | ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৮:৪৫

শৈলকুপায় সাপের ছোবলে প্রাণ গেল ২ ভাইয়ের। গতকাল মায়ের অনুপস্থিতিতে ছোটভাই সোহাগ মণ্ডলকে (৮) সঙ্গে নিয়ে একই বিছানায় ঘুমিয়ে ছিলেন বড় ভাই শাহীন মণ্ডল (৩৫)।  মঙ্গলবার  মধ্যরাতে  বিষধর সাপ তাদের দু’জনকে ছোবল দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার নাগপাড়া গ্রামে।
নিহতদের বোন শাপলা খাতুন জানান, শাহীন, তুহিন আর সোহাগ মিলে তারা তিন ভাই আর এক বোন। বাবা নবাব আলী বেশ কিছুদিন আগে মারা গেছেন।  দুই ভাই বিয়ে করে পৃথক সংসার করেন।
সোমবার বিকালে মা জুনি বেগম তার ভায়ের বাড়ি একই উপজেলার আউশিয়া গ্রামে যান। যাওয়ার সময় ছোট ছেলে সোহাগ মণ্ডলকে বাড়িতে রেখে যান। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার সময় বড় ভাই শাহিন মণ্ডল তার কাছে নেন ছোট ভাই সোহাগ মণ্ডলকে।
পোতাপাকা টিনশেডের একই কক্ষে তারা দুই ভাই ঘুমিয়ে ছিলেন।  মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১ টার দিকে হঠাৎ করে বিষধর সাপ তার বড় ভাইয়ের ঘরে প্রবেশ করে। খাটের ওপর ঘুমিয়ে থাকা দুই ভাই শাহীন মণ্ডল ও সোহাগ মণ্ডলকে দংশন করে।
শাহীন মণ্ডলের স্ত্রী আছিয়া বেগম  বিষয়টি বুঝতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে চিৎকার দেন। পার্শ্ববর্তী চামটিপাড়া গ্রামের ওঝাঁ (সাপুড়িয়া) শফি উদ্দিন শেখকে বিষয়টি বললে তিনি সাপে কেটেছে বলে জানান, এবং দ্রুত হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। দুই ভাইকে রাতেই কুষ্টিয়া হাসপাতালে নেয়া হলে ভোরের দিকে কর্ত্যবরত চিকিৎসকরা জানান তারা মারা গেছেন। এই সংবাদ নাদপাড়া গ্রামে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে নেমে আসে শোকের ছায়া। এছাড়া সোমবার একই উপজেলার যুগনী গ্রামে সাপের ছোবলে মারা গেছে বিলকিস নামের এক গৃহবধূ। শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের  মেডিকেল অফিসার সায়েম আহমেদ জানান, জনবসতির আশপাশে পানি জমে থাকলে সেখানে সাপ আছে কিনা শনাক্ত করতে হবে, এছাড়া ঘরে কার্বলিক এসিড ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন। একই সঙ্গে সাপে দংশন করলে দ্রুত হাসপাতালে আনার কথাও জানিয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর