× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার

যুক্তরাষ্ট্রে পালালেন পাকিস্তানি অধিকারকর্মী গুলালাই

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ৪:২০

বেশ কয়েক মাস আত্মগোপনে থাকার পর পাকিস্তান ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পালিয়েছেন বিশিষ্ট মানবাধিককর্মী গুলালাই ইসমাইল। এক বিবৃতিতে তিনি জানিয়েছেন, গত কয়েকমাস দুর্বিষহ জীবন কাটিয়েছেন তিনি। তাকে হুমকি দেয়া হয়েছে, হয়রানি করা হয়েছে। ভাগ্যের জোরে বেঁচে আছেন তিনি। মার্কিন দৈনিক দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটা জানান গুলালাই।

গুলালাইয়ের ওপর পাকিস্তানে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি ছিল। তা সত্ত্বেও কীভাবে দেশ ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পৌছেছেন সে বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি। কেবল বলেছেন, পালাতে কোনো বিমানবন্দর ব্যবহার করেননি। তার বিরুদ্ধে পাকিস্তানে রাষ্ট্র-বিরোধী কার্যক্রমে জড়িত থাকা ও সহিংসতা উস্কে দেয়ার অভিযোগ রয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যম অনুসারে, বর্তমানে নিউ ইয়র্কে তার বোনের সঙ্গে অবস্থান করছেন ৩৩ বছর বয়সী গুলালাই।
যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

গুলালাই ইসমাইল কে?
বহু বছর ধরে পাকিস্তানে মানবাধিকার লঙ্ঘন, বিশেষ করে নারী ও মেয়েদের বিরুদ্ধে নির্যাতনের স্পষ্টভাষী সমালোচনা করে আসছেন গুলালাই। খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে ১৬ বছর বয়সে কম বয়সী মেয়েদের মানবাধিকার সম্পর্কে শিক্ষা দিতে ‘অ্যাওয়ার গার্লস’ নামে একটি এনজিও প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। ২০১৩ সালে ১০০ নারী সদস্যকে নিয়ে একটি দল গঠন করেন তিনি। তারা গৃহ নির্যাতন ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে কাজ করতো। তার কাজের জন্য তিনি একাধিক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

তাকে ২০১৮ সালে প্রথমবার গ্রেপ্তার করা হয়। লন্ডন থেকে এক সফর শেষে ফেরার পরপরই গ্রেপ্তার হন তিনি। সেসময় তিনিসহ মোট ১৯ জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী বক্তব্য দেয়ার অভিযোগ আনা হয়। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে তাকে ফের গ্রেপ্তার করা হয়। এক বিক্ষোভের সময় পিটিএম কর্মী আরমান লুনির মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেপ্তার হন তিনি। তবে অভিযোগ রয়েছে যে, পুলিশের মারধরে আরমানের মৃত্যু হয়েছিল। যদিও পুলিশ সে অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। মে মাসে ১০ বছর বয়সী এক কন্যা শিশুর ধর্ষণ ও হত্যার বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে রাষ্ট্র ও অন্যান্য জাতীয়তার বিরুদ্ধে উস্কানি দেয়ার অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে। তখন থেকেই তিনি আত্মগোপনে ছিলেন।

পাকিস্তাব থেকে পালানোর আগে তার বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। কীভাবে দেশ ছেড়েছেন সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছুই জানাননি তিনি। কেবল বলেছেন যে, আকাশপথে যুক্তরাষ্ট্রে পৌছাননি। শ্রীলংকা হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পৌছেছেন। পাকিস্তানি নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই শ্রীলংকা যেতে পারেন।

পালানোর আগে আত্মগোপন থাকার সময় নিয়েও কিছুই খুলে বলেননি গুলালাই। তার আশঙ্কা, ওই বিষয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ করলে তাকে দেশ ছাড়তে সাহায্যকারীরা ঝুঁকিতে পড়বেন। গুলালাইয়ের বাবা মোহাম্মদ ইসমাইল জানান, তার বিরুদ্ধে পাকিস্তানি আদালতে ছয়টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিজের প্রাণনাশের ঝুঁকি রয়েছে, এমন আশঙ্কা থেকে দেশ ছেড়েছেন গুলালাই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর