× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

কুড়িগ্রামে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, (কুড়িগ্রাম) থেকে | ১০ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৮:৩৯

কুড়িগ্রাম শহরের পৌরসভার হাটিরপাড় হিঙ্গণরায় এলাকায় শারমীন আক্তার (২৬) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত গৃহবধূর স্বজনদের দাবি তাকে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল সকাল ৮টায় মেয়েকে ঘরের মেঝেতে নিথর অবস্থায় দেখতে পান শারমীনের মা শাহিনা আক্তার। পরে পুলিশ এসে লাশের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে শারমীনের স্বামী মাইদুল ইসলাম বাবু পলাতক রয়েছে। তাদের পরিবারে শিশির নামে ৪ বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। পরিবারের স্বজনরা জানান, ভালোবেসে শারমীনকে বিয়ে করে একই পাড়ার মোহাম্মদ আলী (প্রাক্তন নাজির) পুত্র মাইদুল ইসলাম বাবু (৩০)। দু’জনের সংসারে চার বছরের একটি সন্তান রয়েছে।
মাইদুল ইসলাম বাবু পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাট জেলায় একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত। অপরদিকে শারমীন আক্তার বাড়ির পাশেই একটি বেসরকারি ক্লিনিকে আলট্রাসনোগ্রামের কাজ করতো। ঘটনার দিন একটি বেসরকারি এনজিও থেকে কিস্তি বাবদ ঋণ পাওয়ার কথা ছিল শারমীনের। তার আসতে দেরি হওয়ায় মাঠকর্মীর পরামর্শে শারমীনকে ডাকতে যান তার মা শাহিনা আক্তার। তিনি মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে দেখতে পান বাহিরের ও ভেতরের ঘরের দরজা খোলা। তাদের চার বছরের পুত্র চিৎকার করে কাঁদছে। ঘরে ঢুকে মেয়েকে অন্ধকার মেঝেতে নিথর অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন তার মা। ছোট্ট শিশু শিশির জানায় তার বাবা মাকে মেরেছে। তারপর থেকে কোনো কথা বলছে না।

 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর