× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার
এনআইএ’র দাবি

ভারতে শাখা বিস্তার করছে জেএমবি

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৫ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:৪৫

ভারতের ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (এনআইএ) প্রধান ওয়াই সি মোদি বলেছেন, ভারতজুড়ে শাখা প্রশাখার বিস্তার ঘটানোর চেষ্টা করছে জঙ্গিগোষ্ঠী জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি)। সোমবার এন্টি-টেরোরিজম স্কোয়াডের (এটিএস) প্রধানদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি বক্তব্য রাখছিলেন। এ সময় তিনি বলেন, এমন তৎপরতায় জড়িত সন্দেহজনক ১২৫ জনের একটি তালিকা বিভিন্ন রাজ্যের সঙ্গে শেয়ার করা হয়েছে। জেএমবির নেতৃত্বের সঙ্গে তাদের রয়েছে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ। তিনি আরো বলেছেন ঝাড়খন্ড, বিহার, মহারাষ্ট্র, কর্নাটক ও কেরালা রাজ্যে এসব তৎপরতার বিস্তার করেছে জেএমবি। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা পিটিআই।

ওদিকে এনআইএ’র ইন্সপেক্টর জেনারেল অলোক মিত্তাল বলেছেন, সন্দেহজনকের তালিকায় রয়েছে ১৩০ জন। তিনি বলেছেন, ২০১৪ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ব্যাঙ্গালোরে ২০ থেকে ২২টি গোপন আস্তানা বসিয়েছে জেএমবি।
তারা দক্ষিণ ভারতেও তাদের ঘাঁটির বিস্তার করেছে। কর্নাটক সীমান্তের কাছে কৃষ্ণগিরি পাহাড়ে রকেট উৎক্ষেপণের মহড়াও দিয়েছে জেএমবি। অলোক মিত্তাল আরো বলেছেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের দুর্ভোগের প্রতিশোধ নিতে বৌদ্ধদের উপাসনালয়ে হামলা চালাতে উদগ্রীব হয়ে আছে জেএমবি। তিনি আরো জানান প্রথমে ২০১৭ সালে নিজেদের কর্মকান্ড শুরু করে এই জঙ্গি সংগঠনটি। প্রথমে তারা কর্মকান্ড শুরু করে পশ্চিবঙ্গে ও আসামে। এরপর তারা ভারতের বিভিন্ন অংশে তাদের প্রভাব বিস্তার করে। অলোক মিত্তাল বলেন, তদন্তে দেখা গেছে জেএমবি নেতৃত্বের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখেন ১৩০ জন। মধ্যপ্রাচ্যে জঙ্গি গোষ্ঠী আইসিস বা আইএসের সঙ্গে যোগাযোগ থাকার কারণে এ পর্যন্ত ভারতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ১২৭ জনকে। তাদের বেশির ভাগই স্বীকার করেছে যে, তারা বিতর্কিত ধর্মীয় বক্তা ড. জাকির নায়েকের ভিডিও বক্তব্য দেখে উৎসাহিত হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর