× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার

যুক্তরাষ্ট্র-ভারত প্রতিরক্ষা বাণিজ্য দাঁড়াবে ১৮০০ কোটি ডলারে

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৯ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, ১:১৪

এ বছরের শেষ নাগাদ যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় প্রতিরক্ষা বাণিজ্য ১৮০০ কোটি ডলারে দাঁড়াবে বলে পূর্বাভাষ দিয়েছে পেন্টাগন। আগামী সপ্তাহে ভারতের রাজধানী নয়া দিল্লিতে নবম ইন্ডিয়া-ইউএস ডিফেন্স টেকনোলজিস অ্যান্ড ট্রেড ইনিশিয়েটিভের (ডিটিটিআই) বৈঠক বসার কথা রয়েছে। সেই বেঠককে সামনে রেখে প্রতিরক্ষা বাণিজ্যের ওই পূর্বাভাষ দেয়া হয়েছে। এ খবর দিয়েছে ভারতের সরকারি বার্তা সংস্থা পিটিআই। যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাকুইজিশন অ্যান্ড সাসটেইনমেন্ট বিষয়ক প্রতিরক্ষা আন্ডার সেক্রেটারি ইলেন এম লর্ড বলেছেন, ভারতের সঙ্গে অংশীদারিত্ব শক্তিশালী করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ যুক্তরাষ্ট্র। সেনাবাহিনীর সঙ্গে সেনাবাহিনীর সম্পর্ক ও সহযোগিতাও বৃদ্ধি করতে চায় তারা। পেন্টাগনে তিনি বলেন, ২০০৮ সালে দ্বিপক্ষীয় প্রতিরক্ষা বাণিজ্য কার্যত ছিল শূন্য। তবে এ বছরের শেষ নাগাদ তা ১৮০০ কোটি ডলারে পৌঁছাবে।


আগামী সপ্তাহে নয়া দিল্লিতে ডিটিটিআইয়ের যে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে তাতে সহ-সভাপতিত্ব করার কথা রয়েছে ইলেন এম লর্ডের। তার সঙ্গে সহ-সভাপতিত্ব করার কথা রয়েছে ভারতের প্রতিরক্ষা সুরক্ষা বিষয়ক সচিব অপূর্ব চন্দ্রের। ইলেন এম লর্ড বলেছেন, যেহেতু ডিটিটিআইতে নেতৃত্ব দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, তাই আমি ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষা বিষয়ক বড় ধরনের অংশীদারিত্বের জন্য কাজ অব্যাহত রাখতে খুব উদ্বেলিত। তিনি আরো বলেছেন, গত আগস্টে ইন্ডিয়া স্ট্রাটেজিক ট্রেড অথরিটি টায়ার-১ অনুমোদন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর ফলে নয়া দিল্লির সামনে বৃহত্তর সাপ্লাই চেইন খুলে গেছে। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলো ভারতের কাছে ‘ডুয়েল-ইউজ’ এবং উচ্চ প্রযুক্তির আইটেমগুলো রপ্তানি করতে পারবে। জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার মতো মিত্রদের যে রকম কর্তৃত্ব দিয়েছে ন্যাটো, ভারতকে সেই একই রকম অনুমোদন দেয়া হয়েছে। ইলেন এম লর্ড আরো বলেন, ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় বিষয়ে অভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গিতে সহযোগিতার ক্ষেত্রে এবং দ্বিপক্ষীয় বিষয়গুলোতে কিভাবে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত কাজ করছে তা বলে দেয় এসব উদাহরণ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর