× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার

নবাবগঞ্জ বাজার সমিতির নির্বাচন কাল

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর থেকে | ১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:১৩

রংপুর নগরীর প্রাণকেন্দ্রে গড়ে উঠা ব্রিটিশ আমলের পুরাতন ঐতিহ্যবাহী নবাবগঞ্জ বাজার। অনেকে এ বাজারকে গুদরি বাজার বলে জানেন। এ বাজারে ছোট-বড় সব মিলে সহস্রাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। খুচরা-পাইকারির মুদিখানা, মনোহারি, স্টেশনারি, কসমেটিক্স দোকানসহ চুড়িপট্টি রয়েছে। রংপুর বিভাগের ৮ জেলা-উপজেলা থেকে ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা নবাবগঞ্জ বাজারে আসেন কেনাবেচা করতে। ব্যবসা নিয়ন্ত্রণের জন্য রয়েছে বাজার ব্যবসায়ী সমিতি। এ সমিতির ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনকে ঘিরে পরিস্থিতি উৎসব মুখর। আগামীকাল শুক্রবার নির্বাচন।
১ হাজার ৮৫ ভোটার রয়েছে। ১৭ পদের জন্য ৩৩ প্রার্থীর লড়াই।  দল, মত, নির্বিশেষে এ নির্বাচনে লড়াই হবে প্রবীণ ও নবীনের মধ্যে। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন চেয়ারম্যান রংপুর জেলা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। নির্বাচনের কয়েকদিন ধরে প্রার্থীরা মহাব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ভোট প্রার্থনায়। জয়ী হতে মরিয়া হয়ে সকলেই ছুটছেন ভোটারদের কাছে। নিচ্ছেন কৌশল, দিচ্ছেন প্রতিশ্রুতি ও ইশতেহার। পোস্টারে-ব্যানারে আর ফেস্টুনে ছেয়ে ঢাকা পড়েছে পুরো বাজার। যেন এক অন্যরকম দৃশ্য। এ নির্বাচনের প্রভাব পড়েছে আশপাশের হাঁড়িপট্টি, বেতপট্টি, স্টেশন রোডের ব্যবসায়ীদের মাঝে। সরেজমিনে দেখা যায়, প্রচার করতে গিয়ে আনোয়ার হোসেন তার প্রতীক গোলাপ ফুল সকল ব্যবসায়ীকে উপহার দিয়ে ভোট চাইছেন। মিঠুন মাছ প্রতীকের মনোগ্রাম বুকে লাগিয়ে ভোট চাইছেন। জয়ের ব্যাপারে তিনি বলেন, আলহামদুল্লিাহ্‌। কামরুজ্জামান সুমনের পক্ষে তার বাবা শফি মিয়া নিজের ছেলের উচ্চ শিক্ষার যোগ্যতা তুলে যোগ্য প্রার্থী বলে ভোট চাইছেন। ইমতিয়াজ তার রেডিও প্রতীকের প্রচারণা চালাতে সামসুল আলম সাজুর দোকানের সামনে বড় রেডিও লাগিয়ে গানের ব্যবস্থা করে সকলের মনোরঞ্জন করছেন। মজিবর রহমান বলেন, নির্বাচিত হলে সিসি ক্যামেরার আওতায় এ বাজার আনা হবে। এছাড়া অগ্নি নির্বাপক ব্যবস্থাসহ মাদক মুক্ত বাজার গড়া হবে। নবাবগঞ্জ বাজারের নুরানী জামে মসজিদের ইমাম আসাদ-উদ-দৌলা বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে নবাবগঞ্জ বাজারের কলে আনন্দে মুখরিত, দেখতে বেশ ভালোই লাগছে। সভাপতি প্রবীণ প্রার্থী আলহাজ্ব সাইফুল ইসলাম মানবজমিনকে জানান, ইতিপূর্বে নির্বাচিত হয়ে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতা ছাড়াই গেট, টয়লেটসহ নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ উন্নয়ন করেছি। অপর সভাপতি নবীন প্রার্থী মফিজার রহমান চান বলেন, নির্বাচিত হলে ড্রেনেজ ব্যবস্থা, দূষণমুক্ত পরিবেশসহ পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ মডেল বাজার হিসেবে গড়ে তুলব। ভোটার মিজানুর রহমান বলেন, নতুন কমিটির কাছে উন্নয়ন চাই। সামছুল আলম সাজু বলেন, ঐতিহ্যবাহী নবাবগঞ্জ বাজারের নির্বাচন মানেই এক আনন্দ উৎসব। এখানে কোন দলীয় রেষারেষি না থাকায় সকলের মধ্যে সৌহার্দ সম্পর্ক রয়েছে। নির্বাচনের ময়দানে ভোটযুদ্ধের প্রার্থীরা হলেন, সভাপতি পদ প্রার্থী সাইফুল ইসলাম, মফিজার রহমান চান, সিনিয়র সহ-সভাপতি মজিবর রহমান, আনোয়ার হোসেন, সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম মিলন, আশরাফ আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর, ফয়জুল হাসান রুবেল, সহ-সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান রাজু, সেলিম চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম হাকিম, কামরুল হাসান, কোষাধ্যক্ষ আবুল কাসেম, আব্দুল মান্নান, দপ্তর সম্পাদক বেলাল হোসেন, উৎপল কিশোর বনিক, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন, আফসার আলী, কামরুজ্জামান সুমন, ধর্ম সম্পাদক আব্দুস সালাম মুন্সি, মিজানুর রহমান, প্রচার সম্পাদক খোকন হোসেন তালুকদারও ইমতিয়াজ আহমেদ। ৬ সদস্য পদের জন্য লড়ছেন আব্দুল জলিল, মো. মিঠুন, আব্দুল কাদের দুলাল, আকতার হোসেন মন্টু, আনোয়ার হোসেন বাবু, হাসান মাহমুদ, ওমর ফারুক, নুরুনন্নবী মিস্টার, গৌর বণিক।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর