× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার

পাবিপ্রবি’র ভর্তিযুদ্ধে প্রতি আসনে লড়ছেন ২৫ জন

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, পাবনা থেকে | ১৫ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ৮:২১

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ। এই ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে পাবনায় অবস্থান করবে শিক্ষার্থী সহ প্রায় ৫০ হাজার মানুষ। এদের দুরবস্থার কথা বিবেচনা করে এবারই প্রথম ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের জন্য বিনা খরচে থাকা-খাওয়া সহ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে পাবনার জেলা প্রশাসন সহ বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে প্রবেশের প্রথম ধাপ ভর্তি পরীক্ষা। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা। এবছর দু’টি ইউনিটের ১ হাজার ২০টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা দিয়েছেন ২৫ হাজার ৭০৫ জন পরীক্ষার্থী। এক্ষেত্রে প্রতি আসনে লড়ছেন ২৫ জন পরীক্ষার্থী। সকাল দশটা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ ইউনিট এবং বিকেল সাড়ে তিনটা থেকে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত বি ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে শহরের ১৫টি কেন্দ্রে।
শান্তিপূর্ন ও সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষসহ প্রশাসন।  
এদিকে, প্রতি বছর ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে গিয়ে থাকা-খাওয়ার বিষয়ে অভিভাবক-পরীক্ষার্থীদের পড়তে হয় মহাবিপাকে। তবে আশার কথা, এবছর পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের বিনা খরচে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এবং স্থানীয় জেলা ও পুলিশ প্রশাসন। তাদের আহবানে সাড়া দিয়ে পাবনার বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানও এগিয়ে এসেছে এমন উদ্যোগে শামিল হতে। কেন্দ্রে আনা-নেয়া করতে গাড়ির ব্যবস্থা, অসুস্থ্য হলে তাদের স্বাস্থ্যসেবা করতে প্রস্তুত শহরের বেশকিছু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ডক্টর প্রীতম কুমার দাস বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ও জেলা প্রশাসনসহ পাবনাবাসী যে উদ্যোগ নিয়েছে সেটা নিঃসন্দেহে ভাল উদ্যোগ। এর মধ্য দিয়ে পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমবে এবং তারা নির্বিঘ্নে পরীক্ষা দিতে পারবে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ভর্তি পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে বলে মনে করেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর