× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার

তিন বছরের অডিট রিপোর্ট অনুমোদন

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৭ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৮:৩৫

প্রায় সাড়ে তিন বছরের বেশি সময় পর অনুষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) বহু কাঙ্ক্ষিত বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম)। কোনা রকম গোলযোগ ছাড়াই গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুরে সারাহ রিসোর্ট সেন্টারে অনুষ্ঠিত এই এজিএম-এ গত তিন বছরের অডিট রিপোর্টের অনুমোদন দেন কাউন্সিলরা। অনুমোদন দেয়া হয় আগামী বছরের বাজেটও। এজিএমে ১৩৮ জন কাউন্সিলরের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ১৩৫ জন।
২০১৬ সালে দায়িত্ব নেয়ার পর এবার প্রথম বার্ষিক সাধারণ সভা আয়োজন করে বাফুফে। সভায় মূল আলোচ্য বিষয় ছিল গেল তিন বছরের অডিট রিপোর্টের অনুমোদন। শুরুতে এই অডিট রিপোর্টের ওপর আপত্তি তোলেন কয়েকজন কাউন্সিলর। এই রিপোর্টের ওপর বলতে চেয়েছিলেন বাফুফে সহ-সভাপতি বাদল রায়ও। কাউন্সিলরা অডিট রিপোর্ট নিয়ে কথা বললেও বাদল রায় সে সুযোগ পাননি।
বাফুফের দাবি নির্বাহী কমিটির একজন সদস্য হিসেবে যে প্রক্রিয়ায় আপত্তি জানানোর কথা বাদল রায়ের, তা তিনি অনুসরণ করেননি। এ নিয়ে বাফুফের সহ-সভাপতি ও সাবেক তারকা ফুটবলার বাদল রায় বলেন ‘ভুলে ভরা অডিট রিপোর্ট টাকা দিয়ে রাতারাতি পাশ করিয়ে নেয়া হয়েছে। আর এটা কোন এজিএম-ই হয়নি।’ এজিএমে অডিট আপত্তির মীমাংসা হয়, গত তিন বছরের বাজেট অনুমোদন হয় এবং আগামী বছরের সম্ভাব্য বাজেটেরও অনুমোদন করিয়ে নেয়া হয়। আগামী বছর বাফুফের সম্ভাব্য বাজেট ৪২ কোটি টাকা। বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব এবং বাংলাদেশ ক্লাব সমিতির সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন বলেন, ‘যদিও অডিট নিয়ে আপত্তি ছিল। তারপরও সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদীর অনুরোধে এবং ফুটবলের স্বার্থে আমি বাজেটে অনুমোদন দিয়েছি।’ সালাম মুর্শেদী বলেন, ‘ভবিষ্যতে অডিটের সমালোচনার বিষয়গুলো আমরা গুরুত্ব দিবো। এছাড়া প্রতি বছর এজিএম করার চেষ্টা করবো।’ সহ-সভাপতি তাবিথ আউয়াল বলেন. ‘ফুটবলের স্বার্থে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে।’ শরীয়তপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক চঞ্চল বলেন, ‘সিলেট ফুটবল একাডেমির সাত লাখ ডলারের হিসাব আজও দেয়নি বাফুফে। এটা একটি গোজামিলের অডিট রিপোর্ট।’ সভাপতির বক্তব্য ছাড়াই শেষ হয় এজিএম।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর