× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবরসাউথ এশিয়ান গেমস- ২০১৯
ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

‘আপাতত সহনীয় মাত্রায় জরিমানা’

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ২:৫৯

নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে ভ্রাম্যমান আদালতের তৎপরতা শুরু হয়েছে। গাড়ির ফিটনেস না থাকা, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও অতিরিক্ত যাত্রী বহনসহ বিভিন্ন অপরাধে আপাতত সহনীয় মাত্রায় জরিমানা করা হচ্ছে।

আজ রাজধানীর কয়েকটি মোড়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমান আদালতকে তৎপর দেখা গেছে। ভ্রাম্যমান আদালতের চারটি টিম কাজ করছে।

বিআরটিএ চেয়ারম্যান ড. কামরুল ইসলাম জানান, সড়কে বিভিন্ন অপরাধে সহনীয় মাত্রায় জরিমানা আদায় করার কাজ শুরু হয়েছে। তবে একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি হলে জরিমানার পরিমাণ বাড়তে পারে। তিনি জানান, প্রথম দিকে গাড়ির ফিটনেস না থাকা, চালকের লাইসেন্স না থাকা, যানবাহন রংচটা হওয়া, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, অতিরিক্ত যাত্রী বহনের মত ঘটনায় মামলা দিতে শুরু করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

একটি সূত্র জানিয়েছে, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিজে নতুন আইনের বাস্তবায়ন দেখতে রাস্তায় নামতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী তা করতে নিষেধ করেছেন। তবে মন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ীই কাজ করছে বিআরটিএ।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আইনটি ধীরে ধীরে বাস্তবায়নের দিকে যাচ্ছে। হঠাৎ করে একেবারে না করে ধীরে ধীরে প্রয়োগ হচ্ছে।
এখনও ক্যাম্পেইন চালিয়ে যাচ্ছি। নতুন আইনে বড় আকারে মামলা হচ্ছে। এর জন্য সময় লাগবে। জরিমানা সহনীয় মাত্রায় করা হচ্ছে।

এদিকে বিআরটিএর তৎপরতার কারণে গতকাল সোমবার ও আজ মঙ্গলবার রাজধানীতে গণপরিবহনের সংখ্যা কিছুটা কম দেখা গেছে। ফিটনেস না থাকায় অনেক বাস রাজধানীর পথে নামাননি মালিকরা। ফলে দেখা দিয়েছে পরিবহন সংকট। রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে বাসের অপেক্ষায় থাকতে দেখা গেছে যাত্রীদের। রাজধানীর গাবতলী থেকে পল্টনগামী কিছু বাস থেকে যাত্রীদের কল্যাণপুরে এসেই নামিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রিপন
১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:২২

জরিমানার মাত্রা সহনীয় রাখার দিকেই নজর, যাত্রী দুর্ভোগ যে ওদিকে অসহনীয় হয়ে যাচ্ছে, সে খেয়াল আছে? ফিটনেস, চকচকে রঙ, অতিরিক্ত যাত্রী না নেয়া ইত্যাকার হরেক সূচকে একশ'তে একশ' ভাগ উত্তীর্ণ স্ট্যান্ডার্ড মানের বিআরটিসি নগর পরিবহন পাশাপাশি চালু করে এরা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় না কেন - কী করে শতভাগ আদর্শমানের পরিবহন ব্যবস্থা সম্ভব এই সবকিছু অসম্ভবের দেশে? আর কিছু না হোক, অন্তত যাত্রীদুর্ভোগটি সহনীয় থাকতো তাহলে।

অন্যান্য খবর