× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার

সংসদে পাস হলেও আইনের লড়াই এবার শুরু হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে

এক্সক্লুসিভ

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ৮:২১

সংসদের দুই কক্ষে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি পাস হয়ে গেলেও এবার বিরোধীরা বিলটির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ জানাতে চলেছে বলে ইঙ্গিত পাওয়া  গেছে। কংগ্রেস নেতা ও সাবেক অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম বুধবারই এ লড়াইয়ের কথা জানিয়েছেন। লোকসভার পর বুধবার রাজ্যসভাতেও বিলটি নির্বিঘ্নে পাস করিয়ে নিয়েছে সরকার। কয়েকবার সংশোধনের পর গতরাতে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, বিলটি ১২৫-৯৯ ভোটে পাস হয়েছে। বিলের বিরোধিতায় রাজ্যসভায় বিরোধীরা জোরালো যুক্তি তুলে ধরেছিলেন। এবার সংবিধানকে ক্ষুণ্ন করার সেই যুক্তিতেই লড়াই হবে আদালতের কাঠগড়ায়- এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহল।  সেই লড়াইয়ে সরকারকে যথেষ্ট সমস্যায় পড়তে হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। বুধবার বিল পাসের পর কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী বলেছেন, সাংবিধানিক ইতিহাসে দেশের অন্ধকারতম দিন। জয় হলো সংকীর্ণমনা, ধর্মান্ধ গোঁড়াদের।
অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অবশ্য বলেছেন, ভারতের জন্য যুগান্তকারী দিন। সহমর্মিতা এবং সৌভ্রাতৃত্বের যে চিরন্তন ঐতিহ্য ভারত বহন করে সেইদিন  থেকেও আজকের দিনটি যুগান্তকারী। প্রধানমন্ত্রী টুইটারে লিখেছেন, এই বিল বছরের পর বছর ধরে অত্যাচারের মুখোমুখি হওয়া বহু মানুষের কষ্ট লাঘব করবে। এই বিলটি পাস করানোর মাধ্যমে মোদি-শাহ জুটি বুঝিয়ে দিয়েছেন, দেশ কোন ধাঁচে চলবে- সেটা তারাই ঠিক করবেন। নাগরিকত্ব বিল পাসের পর সরকার এতটাই আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছে যে, তারা জানিয়ে দিয়েছে বিরোধিতা সত্ত্বেও পশ্চিমবঙ্গ সহ গোটা ভারতেই এনআরসি চালু করা হবে। তবে বিলের বিরুদ্ধে যেভাবে উত্তর-পূর্ব ভারত ফুঁসে উঠেছে তার মোকাবিলাতেও এই জুটিকে যথেষ্ট বেগ পেতে হবে। বিরোধীরা ইতিমধ্যেই বিল নিয়ে এই জুটির উদ্যোগকে আগ্রাসী হিন্দুত্ব নীতির পরিচায়ক বলে বর্ণনা করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর