× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

প্রতিবাদ-বিক্ষোভে আজও ব্যাহত ট্রেন চলাচল, বাতিল বহু দূরপাল্লার ট্রেন, চরম নাজেহাল মানুষ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার, ১২:৪৩

নতুন নাগরিকত্ব আইন বিরোধী আন্দোলনের জেরে শনিবারের পর রবিবারও সকাল থেকে (পশ্চিমবঙ্গের) প্রায় গোটা রাজ্য জুড়েই ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ। গত দু’দিন ধরে যেভাবে স্টেশনে স্টেশনে তান্ডব চলেছে, তার জেরে এ দিনও ট্রেন চালাতে সমস্যায় পড়েছে দক্ষিণ-পূর্ব রেল। রেলসূত্রে খবর, এ দিনও লোকাল ট্রেনের পাশাপাশি বিভিন্ন দূরপাল্লার ট্রেন চালানো যায়নি। কিছু ট্রেন পরিস্থিতি অনুযায়ী স্বল্প দূরত্বে চালানো হচ্ছে। দক্ষিণ-পূর্ব রেলের বিভিন্ন জায়গায় লোকাল ট্রেন চললেও তা অন্যান্য রবিবারের মতো চলছে না। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আনন্দবাজার পত্রিকা।

তারা আরো লিখেছে, রেল সূত্রের খবর, রবিবারের মালদহ-হাওড়া ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস বাতিল করা হয়েছে। রেকের অভাবে বাতিল হয়েছে হাওড়া-দিঘা তা¤্রলিপ্ত এক্সপ্রেস।
উত্তর ২৪ পরগনার ভ্যাবলা স্টেশনে সকালেই ট্রেন অবরোধ করা হয়। শনিবার থেকেই প্রায় বন্ধ হয়ে পড়েছিল শিয়ালদহ-হাসনাবাদ শাখায় ট্রেন চলাচল। রবিবার সকাল ৫টা ২০ মিনিটে শিয়ালদহ থেকে হাসনাবাদ যাওয়ার প্রথম ট্রেন ছাড়ে।

আসামে যে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তার জেরে হাওড়া-ডিব্রুগড় কামরূপ এক্সপ্রেস, যা ১৫ এবং ১৬ ডিসেম্বর হাওড়া থেকে ছাড়ার কথা রয়েছে, সেটাও বাতিল করা হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে ১৫ এবং ১৬ ডিসেম্বরের দিল্লি-ডিব্রুগড়ের ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেসও। এ ছাড়া ১৫ ডিসেম্বরের চেন্নাই-হাওড়া করমন্ডল এক্সপ্রেস, সাঁতরাগাছি-পুরী রূপসী বাংলা এক্সপ্রেসও বাতিল করা হয়েছে।
তিতলাগড়-হাওড়া ইস্পাত এক্সপ্রেস হাওড়ায় পৌঁছনোর বদলে টাটা নগর পর্যন্ত চলবে রবিবার, ঘোষণা করেছে রেল। পুরী-হাওড়া ধৌলি এক্সপ্রেস খড়গপুরে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়েছে। আজ, রবিবার হাওড়ার বদলে খড়গপুর থেকে তা পুরী রওনা দেবে।
গত দু’দিনের তান্ডবের পর নলহাটি-আজিমগঞ্জ, আজিমগঞ্জ-নিউ ফারাক্কা এবং কৃষ্ণনগর-লালগোলা বিভাগে এখনও ট্রেন চলাচল শুরু করা যায় নি।

নতুন নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে গত দু’দিন ধরেই অশান্ত রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল। মুর্শিদাবাদ, উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়ার বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা এবং রেল লাইন অবরোধ করে একাধিক ট্রেনে একের পর এক আগুন ধরানো হয়। বিভিন্ন স্টেশনে ভাঙচুর করা হয়। মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর স্টেশনে ভাঙচুর চালিয়ে ট্রেনে পাথর ছোড়া হয়। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত হাসনাবাদ, লালগোলা-কৃষ্ণনগর শাখায় ট্রেন চলেনি। সব মিলিয়ে চরম ভোগান্তি হয় সাধারণ মানুষের। বহু লোকাল ট্রেন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। উলুবেড়িয়া, সাঁকরাইল, বেলডাঙায় টিকিট কাউন্টারে আগুন ধরানোর ফলে প্ল্যাটফর্ম থেকে টিকিট দেওয়া হচ্ছে যাত্রীদের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর