× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার

জগন্নাথপুরে সম্মানী ভাতা পাচ্ছে না ৬ মুক্তিযোদ্ধার পরিবার

বাংলারজমিন

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৭:৪৬

মুক্তিযুদ্ধের গেজেটের তালিকাভুক্ত থাকলেও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ছয় মুক্তিযোদ্ধার পরিবার সম্মানী ভাতা পাচ্ছে না। স্বাধীনতার ৪৮ বছর পেরিয়ে গেলেও মেলেনি তাদের সম্মানী ভাতা। জানা যায়, চলতি বছরের ১৪ই জানুয়ারি সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ সুনামগঞ্জের সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালকের নিকট লিখিতভাবে ভাতাবঞ্চিত ৬ মুক্তিযোদ্ধা তালিকাভুক্ত করার জন্য নির্দেশ দেন। ভাতাবঞ্চিত ৬ মুক্তিযোদ্ধা হচ্ছেন- উপজেলার শ্যামারগাঁও গ্রামের মৃত আলাউদ্দিন (মুক্তিবার্তা ০৫০২০৩০০৫০, গেজেট-২৬০০,০৪-০৬-০৫), জগন্নাথপুর পৌরশহরের জগন্নাথপুর এলাকার মৃত বকুল ভট্টাচার্য্য (মুক্তিবার্তা-০৫০৩০০৪৩, গেজেট-২৫৬৩,২২-০৬-০৬), উপজেলার মিঠাভরাং গ্রামের মৃত শাহজাহান চৌধুরী (গেজেট-২৬৪৩, ০৪-০৬-০৫), জগন্নাথপুর পৌর শহরের ইকড়ছই এলাকার মৃত মির্জা আব্দুল মতিন (গেজেট-৩৩৭৯, ২৪-১১-০৫) একই এলাকার মৃত আলমাছ হোসেন (গেজেট-১৫৯৬, ০১-০৬-১৪) এবং উপজেলার গড়গড়িকান্দি গ্রামের মৃত ছিদ্দেক আলী (গেজেট-৩৩৮৯, ২৪-১১-০৫)। ভাতাবঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধা মৃত আলমাছ মিয়ার বড় ছেলে আলমগীর হোসেন স্থানীয় সংবাদিকদের জানান, আমার বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। শক্রুর কবল থেকে দেশ রক্ষায় মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে রণাঙ্গনে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৪৮ বছর পেরিয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত আমরা মুক্তিযুদ্ধের সম্মানী ভাতার আওতাভুক্ত হইনি। জেলা প্রশাসক মহোদয় ১৩ মাস পূর্বে ভাতা প্রদানে লিখিতভাবে নির্দেশনা দিলেও কোনো সুফল  মেলেনি।
বারবার স্থানীয় উপজেলা সমাজসেবা অফিসে ভাতার জন্য ধর্ণা দিয়েও কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি। জগন্নাথপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবুল কালাম জানান, আমাদের কার্যালয় থেকে জগন্নাথপুরের ১২০ জন মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের লোকজন সম্মানী ভাতা নিচ্ছেন। নতুন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত ছয় মুক্তিযোদ্ধার সম্মানী ভাতার তালিকা আমরা পাইনি। এছাড়া ওই ৬ মুক্তিযোদ্ধার বিষয়ে আমাদের কিছু জানাও নেই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর