× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

গাজীপুরের শ্রীপুরে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ, নারী গ্রেপ্তার

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে | ১৮ জানুয়ারি ২০২০, শনিবার, ৭:১৬

গাজীপুরের শ্রীপুরে এক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও এই ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া উর্মি (১৮) এলাকার ভাড়াটিয়া কবিরের স্ত্রী। ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। শ্রীপুর থানার এসআই মো. নাজমুল সাকিব জানান, ধর্ষণের অভিযোগে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার সকালে শ্রীপুর থানায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। মামলার আসামিরা হলেন- শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুর এলাকার সোহরাব মিয়ার ছেলে শরীফ (১৮), লিটন মিয়ার ছেলে সুজন (১৯), নয়নপুর এলাকার হারুন মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া কবিরের স্ত্রী উর্মি (১৮) ও অপর একজন শরীফ (২০)। বাদীর অভিযোগ, বিদ্যালয়ে যাওয়া-আসার পথে  সোহরাবের ছেলে শরীফ ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেন। তাতে সাড়া না দেয়ায় শরীফ তাকে উত্ত্যক্ত করতেন এবং অপহরণের হুমকি দিতেন। ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরী নয়নপুর এলাকার শিশু শিক্ষা মডেল স্কুল অ্যান্ড একাডেমির অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।
তার মা স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় অপারেটর হিসেবে কাজ করেন। গত বুধবার তিনি তার কারখানায় ডিউটি শেষে রাত ১০টার দিকে বাসায় ফিরে মেয়েকে দেখতে পাননি।
আশপাশে খোঁজাখুঁজি করার পর একটি ঝোপ থেকে অজ্ঞান অবস্থায় মেয়েকে উদ্ধার করেন। স্থানীয় পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে চিকিৎসা দিলে তার জ্ঞান ফেরে। রাত ৮টার দিকে ঘরের বাইরে ওয়াশরুমে যাওয়ার সময় শরীফ ও তার সঙ্গীরা তার মেয়েকে মুখ চেপে ধরে তুলে নেন। পরে শরীফ তাকে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যান। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সাকিব জানান, ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোরে উর্মিকে গ্রেপ্তার করেছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর