× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার

হাকালুকির বিল থেকে বৈধভাবে মাছ শিকার

বাংলারজমিন

অকুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, ৯:১২

হাকালুকি হাওরের আবদ্ধ জলমহাল হাওর-খাল-বিল থেকে অবৈধভাবে মাছ শিকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই বিল থেকে মাধবকুণ্ড মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি সম্পূর্ণ অবৈধভাবে মাছ শিকার করছে বলে অভিযোগ করেন সোনার বাংলা মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ফিশারম্যান কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের লোকজন। সোনার বাংলা মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ফিশারম্যান কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের সভাপতি আব্দুল খালিক বাদল এবং সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন জানান, হাকালুকি গুটাউরা হাওর খাল আবদ্ধ জলমহালটি উপজেলা জলমহাল ব্যবস্থাপনা কমিটি ও জেলা জলমহাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সুপারিশ ছাড়াই ভূমি মন্ত্রণালয় মাধবকুন্ড মৎস্যজীবী সমবায় সমিতিকে ১৪২৪ বাংলা থেকে ১৪২৯ বাংলা পর্যন্ত ৬ বছরের জন্য ইজারা প্রদানের আদেশ জারি করে। এ আদেশের বিরুদ্ধে সোনার বাংলা মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সমবায় সমিতি হাইকোর্টে রিট মামলা (নং-১৫৬১/২০১৮ইং) দায়ের করেন। প্রথমে আদালত ৬ মাসের স্থগিতাদেশ জারি করেন। পরবর্তীতে দীর্ঘ পর্যলোচনা করে আদালত ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৯ সোনার বাংলা মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ফিশারম্যান কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের পক্ষে রায় দেন। কিন্তু মাধবকুণ্ড সমিতি একদিকে এ স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে লিভ টু আপিল (৩২২৩/১৮ইং) দায়ের করে এবং অন্যদিকে আদালতের স্থগিতাদেশকে অগ্রাহ্য করে লিজ ডিডের শর্ত ভঙ্গ করে অবৈধভাবে বিল থেকে মাছ শিকার করে বিক্রি করছে। সভাপতি আব্দুল খালিক বাদল অভিযোগ করে আরো বলেন, স্থানীয় প্রভাবশালীদের মদতে মাবধকুণ্ড মৎস্যজীবী সমিতির লোকজন এতদিন রাতের আঁধারে মাছ শিকার করলেও বর্তমানে তারা বিলের পাড় কেটে পানি নিষ্কাশন করে দিনে-দুপুরে মাছ লুট করছে।
কোর্টের রায় দেখিয়ে তাদের বাঁধা প্রদান করলে উল্টো তারা আমাদের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে মাধবকুণ্ড মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সভাপতি সালাম উদ্দিন আনীত অভিযোগটি অস্বীকার করে বলেন, আমরা বিল থেকে মাছ ধরছি না, বরং বিল পাহারা দিচ্ছি।

 সরকারি সম্পদ পাহারা দেয়া তো দোষের নয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর