× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

‘রোগীর সঙ্গে সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুললে রোগী দ্রুত সুস্থ হয়’

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকে | ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, ৯:১৮

জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, চিকিৎসার পাশাপাশি একজন রোগীর সঙ্গে সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুললে ওই রোগী খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ্যতা লাভ করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে নানা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। কয়েক হাজার চিকিৎসক ও নার্সদের নিয়োগ দিয়ে প্রত্যন্তঞ্চলে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এখন দায়িত্ব পালনের কাজ। দায়িত্ব পালনে কেউ গাফিলতি করলে রোগীরা সমস্যায় পড়ে। তাই চিকিৎসক, নার্স-কর্মকর্তা কর্মচারী দায়িত্বে অবহেলা করলে ছাড় দেয়া হবে না। তিনি এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত করার আশা ব্যক্ত করে বলেন, এ হাসপাতাল বর্তমানে দেশের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। আমরা প্রথম স্থানে যেতে চাই।
এর পর প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিশ্ববিদ্যালয় করার আবেদন করবো। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হলে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল হাসপাতাল, ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ও উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র এবং কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে স্বাস্থ্য সেবা আরো উন্নত হবে। দিনাজপুর জেলাকে স্বাস্থ্য নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে পরিকল্পনার পাশাপাশি সকলকে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। সমন্বয়হীনতা যে কোনো ভাল পরিকল্পনার ব্যাঘাত সৃষ্টি করতে পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের মুক্তিযুদ্ধকালীন সিভিল সার্জন মরহুম আবদুল জব্বারসহ স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় যে সব চিকিৎসক মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিকামী মানুষদের চিকিৎসা সেবা করতে গিয়ে জীবন উৎস্বর্গীত করেছেন তাদের স্মৃতিকে ধারণ করেই চিকিৎসা সেবা দিতে হবে। তিনি ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগকে আধুনিকরণ করে রোগী সেবাকে তরান্বিত করা এবং রোগীদের অভ্যর্থনা কক্ষ সংস্কার করার নির্দেশ দেন। গতকাল দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া উপহার নতুন এ্যাম্বুলেন্স প্রদান এবং প্রসবপূর্ব সেবা (এএনসি) ও প্রসব পরবর্তী সেবা (পিএনসি) কর্ণার  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. মোজাহিদুল ইসলাম, সাবেক পরিচালক ডা. মো. খয়রুল কবীর, উপ-পরিচালক ডা. জাহাঙ্গীর, দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইমদাদ সরকার, এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. শিবেস সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুজন সরকার, শহর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান রাজু, বিএমএর সভাপতি ডা. ওয়ারেস, সাধারণ সম্পাদক ডা. বিকে বোস, কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. নাদির হোসেন, শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মশিউর রহমান, এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টান ডক্টরস এসোসিয়েশনের সভাপতি ডাক্তার আসিফ আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার রাসমিত করিম, ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক ডাক্তার সাদিকুর রহমান, ইন্টান ডক্টরস এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি ডাক্তার খায়রুল আলম। একই দিন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় বক্তব্য রাখেন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। জেনারেল হাসপাতালের শহীদ ডা. আবদুল জব্বার মিলনায়তনে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আহাদ আলীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলাম, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. পারভেজ সোহেল রানা, সমাজ সেবা অফিসার আবু বকর সিদ্দিক, দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক গোলাম নবী দুলালসহ কমিটির নেতৃবৃন্দ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর