× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার

বড়লেখা চা বাগানে স্ত্রী-শাশুড়িসহ ৪ জনকে হত্যা করে আত্মহত্যা

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার মৌলভীবাজার থেকে | ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, ১০:৩৫

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় স্ত্রী-শ্বাশুড়িসহ ৪ জনকে হত্যা করে আত্মহত্যা করেছেন নির্মল (৪০) নামে এক যুবক। হত্যার শিকার ৪ জনই চা শ্রমিক ছিলেন। নিহতদের মধ্যে ৩ জন নারী এবং দু’জন পুরুষ। আত্মহত্যাকারী নির্মল ছাড়া অপর চারজন পেশায় চা শ্রমিক।

আজ ভোরে উপজেলার পাল্লাতল চা বাগানে এ ঘটনা ঘটেছে। বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াসিনুল হক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  

হত্যাকাণ্ডের শিকার চারজন হলেন, নির্মলের স্ত্রী জলি (৩৫), তার শ্বাশুড়ি লক্ষী (৫০) পাশের ঘরের বসন্ত বাবু (৫৫), বসন্তের মেয়ে শিউলি (১৬)। এছাড়া বসন্তের স্ত্রী কানন আহত হয়েছেন।


পুলিশ জানিয়েছে, পারিবারিক কলহের সূত্র ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে তাদের ধারণা। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তাদের হত্যা করা হয়েছে। এদের মধ্যে ঘরের মেঝেতে একজনের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। অন্য লাশগুলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

চা বাগানের একজন কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানান, নির্মলের বাড়ি এই এলাকায় নয়। এক বছর আগে জলির সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তারপর থেকে তিনি শ্বশুর বাড়িতেই থাকতেন।

প্রতিবেশীরা জানান, ভোর ৫টার দিকে নির্মল ও জলির মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। একপর্যায়ে জলিকে মারধর করতে থাকলে দৌড়ে অন্য ঘরে বাবা-মায়ের কাছে চলে যান। তখন নির্মল ধারালো অস্ত্র দিয়ে জলিকে কোপাতে থাকে।  মেয়েকে রক্ষা করতে শাশুড়ি ছুটে আসলে তাকেও  কোপায় নির্মল। এরপর বসন্ত ও শিউলি সেখানে আসলে দু’জনকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে নির্মল। পরে চারজনের মৃত্যু হলে নির্মল নিজের ঘরে গিয়ে আত্মহত্যা করেন।


ঘটনাস্থলটি মৌলভীবাজার জেলা শহর থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এরই মধ্যে পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়েছে। তারা লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি শুরু করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর