× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার
আলাপন

‘নতুন বছরে নতুন অনেক পরিকল্পনা রয়েছে’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ২০ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার, ১১:৪২

মৌসুমি আক্তার সালমা। ক্লোজআপওয়ান প্রতিযোগীতায় চ্যাম্পিয়ন হবার পর থেকেই গান করছেন নিয়মিত। মাঝে বিরতি নিলেও গত দুই বছর ধরে আবার গানের প্রতিটি ক্ষেত্রে সরব তিনি। বছর জুড়েই তিনি ব্যস্ত স্টেজ শো নিয়ে। পাশাপাশি নতুন গান নিয়েও ব্যস্ততা যাচ্ছে তার। সব মিলিয়ে কি অবস্থা?  কেমন কাটছে সময়? উত্তরে সালমা বলেন, ভালো কাটছে। তবে ব্যস্ততার মধ্যে দিয়ে সময় কাটছে। কারণ এখন ষ্টেজ শো এর মৌসুম।
প্রচুর শো করতে হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে শো করছি। তাছাড়া গানের পাশাপাশি সামাজিক কাজে অংশ নিচ্ছি। নতুন বছর তো শুরু হলো।

নতুন গানের কি অবস্থা? সালমা উত্তরে বলেন, বছরটি অন্যরকমভাবে শুরু করেছি। নতুন বছরে নতুন অনেক পরিকল্পনা রয়েছে। সম্প্রতি ‘পাজর’ শিরোনামের একটি গানের মিউজিক ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। এম আর বেষ্টমিডিয়া থেকে এটি প্রকাশ হয়েছে। তাছাড়া হাবিব ওয়াহিদের সুর ও সংগীতে একটি গান প্রকাশ হয়েছে সম্প্রতি আমার। শিরোনাম ‘তোমার অপেক্ষায়’। হাবিব ভাইয়ের সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছে আমার অনেক দিন থেকে ছিলো। এর মাধ্যমে আমার স্বপ্নপূরণ হয়েছে। কারণ আমি হাবিব ভাইয়ের ভক্ত। তার কম্পোজিশন আমার অনেক পছন্দের। হাবিব ভাইয়ের ইউটিউব চ্যানেলেই গানটি ভিডিও আকারে প্রকাশ হয়েছে। বেশ ভালো একটি কাজ হয়েছে। আমি বেশিরভাগ সময় ফোক গান করি। তবে এটি আধুনিক একটি গান। আমার ঘরানার বাইরে গিয়ে গানটি করেছি। প্রকাশের পর থেকে সাড়াও ভালো মিলছে। আশা করছি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ভালো অবস্থানে যাবে গানটি। এর বাইরে বেশ কিছু নতুন গানের কাজ করলাম। কিছু ফোক রযেছে আবার কিছু আধুনিক। সামনে এগুলো নির্দিষ্ট সময় পর পর প্রকাশ হবে। আমার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে থেকেও কিছু গান আসবে। এখন মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? সালমা উত্তরে বলেন, মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা মোটামুটি ভালো। যে যার মতো করে গান করছে। আমি যেমন গান বিভিন্ন কোম্পানি থেকে প্রকাশ করছি। আবার নিজের ইউটিউব চ্যানেল থেকেও প্রকাশ করছি। নিজের চ্যানেলে করলে গানের স্বত্বটা দিয়ে দিতে হয় না। এটা একটা ইতিবাচক দিক। আমি মনে করি ধীরে ধীরে ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা ভালোর দিকে যাবে।

কারণ এখন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে মেধা প্রকাশের সুযোগ রয়েছে। এরইমধ্যে কিন্তু অনেক ভালো কিছু শিল্পী উঠেও এসেছে এসব প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে। এর যে নেতিবাচক দিক নেই তা নয়। তবে ইতিবাচক বিষয়গুলোকেই গ্রহণ করা উচিত। এরইমধ্যে দ্বিতীয় কন্যা সন্তানের নামে সাফিয়া ফাউন্ডেশন গড়েছেন। তার কি খবর? সালমা বলেন, বিভিন্নভাবে আমি ও আমার স্বামী সাগর চেস্টা করছি সাফিয়া ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে অসহায় শিশুদের পাশে দাড়াতে। শিশুদের শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন ধরনের কাজ শুরু করেছি। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আমাদের এই কাজ চলছে। আসলে শিশুদের শিক্ষা নিয়ে কাজ করবার ইচ্ছে আমার অনেক আগে থেকেই ছিলো। অবশেষে আমার স্বামীর সহযোগীতায় এমন একটি ভালো কাজের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করতে পেরেছি। এটা আমার কাছে বড় বিষয়। আমি আজীবন শিশুদের শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করে যেতে চাই। সেই লক্ষেই এগিয়ে যাচ্ছি। এবার অন্য প্রসঙ্গে আসি। সংসার কেমন চলছে? সালমা উত্তরে হেসে বলেন, খুব ভালো চলছে সংসার। আল্লাহুর রহমত ও সবার দোয়ায় আমরা ভালো আছি। সাগর আমার সব কাজে সহযোগীতা করে, উৎসাহ দেয়। তাছাড়া আমরা একে অপরকে বেশ ভালো বুঝি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর