× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার

ঢাকাবাসীর উন্নয়নে নির্বাচনে লড়ছি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার, ৯:২২

ঢাকা দক্ষিণে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, অভিযোগ দেয়ার জন্য নয়, ঢাকাবাসীর উন্নয়ন করার জন্যই নির্বাচন করছি। নির্বাচিত হলে ঢাকার উন্নয়নই হবে মূল লক্ষ্য। তিনি বলেন, আচরণবিধির কারণেই মেয়র সাঈদ খোকন নির্বাচনী প্রচারে নামছেন না। কিন্তু তিনি আমার পক্ষে আছেন। তিনি বলেন, এবার মনোনয়ন না পাওয়ায় তিনি মনে কষ্ট পেয়েছেন, এটা স্বাভাবিক। তিনিও তো দল করেন। তবে কষ্ট পেলেও সাঈদ খোকন আমার পক্ষে আছেন। তিনি আমাকে সমর্থন দিচ্ছেন।
গতকাল পুরান ঢাকার রায়সাহেব বাজারে ৪২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।  অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপি ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নেয়নি। নির্বাচনের নামে তারা আন্দোলনের কর্মসূচি বেগবান করতে চাচ্ছে। তাদের নেত্রী খালেদা জিয়াকে রক্ষা করার জন্য আন্দোলন করছে। কিন্তু আমরা উন্নত ঢাকা গড়ার লক্ষ্য নিয়ে নির্বাচন করছি। আওয়ামী লীগের  নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে কাজ করছে জানিয়ে  শেখ ফজলে নূর বলেন, ‘আমাদের কাছে এই নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। উন্নত ঢাকা গড়ে তুলতে পাঁচটি লক্ষ্য সামনে রেখে কর্মসূচি ঘোষণা করেছি। প্রতিটি জায়গায় নগরবাসীর কাছ থেকে বিপুল সাড়া  পেয়েছি। ঢাকার মানুষ পয়লা ফেব্রুয়ারির অপেক্ষায় রয়েছে। রায়সাহেব বাজারের পথসভার মধ্য দিয়ে দ্বাদশ দিনের নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন শেখ ফজলে নূর। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, সানজিদা খানম, পারভীন জামান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী প্রমুখ। পথসভায় বক্তব্য শেষে সূত্রাপুর ও  কোতোয়ালি থানার বিভিন্ন এলাকায় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে হেঁটে হেঁটে প্রচারপত্র বিলি করেন তিনি। বিকালে ইসলামপুরের মূল সড়কে বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত এক পথসভায় যোগ দেন তাপস। এতে সভাপতিত্ব করেন বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সামসুল আলম। এ পথসভায়ও  ছোট  ছোট মিছিল নিয়ে কয়েক হাজার স্থানীয় ব্যবসায়ী ও নেতাকর্মী যোগ দেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর