× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

চতুর্থ রাজ্য হিসেবে পশ্চিমবঙ্গে সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাস

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৭ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার, ৮:০৫

ভারতে একের পর এক রাজ্যে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস হচ্ছে। সে তালিকায় চতুর্থ রাজ্য হিসেবে যোগ দিয়েছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পশ্চিমবঙ্গ। সোমবার রাজ্যের বিধানসভায় তৃণমূল কংগ্রেসের উত্থাপিত সিএএ বিরোধী প্রস্তাব পাস হয়েছে। এর আগে রাজস্থান, কেরালা ও পাঞ্জাবে আইনটির বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস হয়েছে। এ খবর দিয়েছে দ্য হিন্দুস্তান টাইমস।
খবরে বলা হয়, সোমবার পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় প্রস্তাবটি নিয়ে আলোচনার সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বিরুদ্ধে জোর  স্লোগান শোনা গেছে। বিজেপি-বিরোধী আইনপ্রণেতারা সিএএ-কে জনগণ-বিরোধী, বিভেদমূলক ও বৈষম্যমূলক বলে আখ্যায়িত করেছেন।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা এদিন বিধানসভায় বলেন, এই বিক্ষোভ কেবল সংখ্যালঘুদের জন্য না, সকলের জন্য। আমি আমার হিন্দু ভাইদের এই বিক্ষোভের সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয়ায় ধন্যবাদ জানাই। বাংলায় আমরা সিএএ, এনপিআর ও এনআরসি হতে দেবো না।
আমরা শান্তিপূর্ণভাবে লড়ে যাবো।

এদিকে, তৃণমূল কংগ্রেসের উত্থাপিত প্রস্তাবটির বিরোধীতা করেন বিজেপি বিধায়করা। তবে মুখরিত   স্লোগানে তাদের বক্তব্য চাপা পড়ে যায়। কংগ্রেস ও অন্যান্য বামপন্থি দলগুলো তৃণমূল সরকারকে সমর্থন করেছে।

প্রসঙ্গত, গত বছর সিএএ পাস করে বিজেপি। এই আইন অনুসারে, ২০১৫ সালের আগে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, জৈন, পারসি ও শিখ সম্প্রদায়ের যেসব নিপীড়িত সদস্য ভারত গেছেন তাদের নাগরিকত্ব দেয়া হবে। তবে আইনটি থেকে মুসলিমদের বাদ দেয়ায় আইনটিকে বৈষম্যমূলক বলে আখ্যায়িত করেছেন বিরোধীরা। এ নিয়ে ভারতজুড়ে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভে সমর্থন জানিয়েছেন, দেশটির প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব, বলিউড তারকা, মানবাধিকারকর্মী সহ অনেকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর