× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৯ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার
গান স্যালুটে শেষ বিদায়

অভিনেতা তাপস পালের মৃত্যুর জন্য বিজেপি দায়ী: মমতা

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৭:২৫

উত্তম কুমার পরবর্তী যুগের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেতা ও সাবেক সাংসদ তাপস পালকে বুধকার গান স্যালুটের মাধ্যমে শেষ বিদায় জানানো হয়েছে।  কেওড়াতলা মহাশ্মশানে পূর্ণাঙ্গ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সম্পন্ন  হয়েছে প্রিয় অভিনেতার শেষকৃত্য।

গত মঙ্গলবার ভোরে মুম্বইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন অভিনেতা তাপস পাল। মঙ্গলবার রাতেই মুম্বাই থেকে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়েছিল তার মরদেহ। শায়িত ছিল দক্ষিণ কলকাতার  গল্ফগ্রিনের বাড়িতে। বুধবার সকালে প্রথমে টেকনিশিয়ান স্টুডিওতে নিয়ে যাওয়া  হয়েছে তাপস পালের মরদেহ। তারপর সেখান থেকে সবার শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের জন্য রবীন্দ্র সদনে রাখা ছিল তার মরদেহ।

প্রিয় অভিনেতাকে শেষ দেখার জন্য বহু মানুষ এসেছিলেন। অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সাধারন মানুষ সকলেরই চোখ ছিল অশ্রুসিক্ত।  রবীন্দ্র সদনে  অভিনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাপস পালের মৃত্যুর জন্য কেন্দ্রের বিজেপি সরকারই দায়ী বলে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন তৃণমূল নেত্রী।

তিনি বলেছেন, তাপস পালকে প্রতিহিংসার রাজনীতির শিকার হয়ে অকালে চলে  যেতে হলো। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে দিয়ে তাপস পালকে গ্রেপ্তার করানো হয়েছিল এবং বিনা বিচারে এক বছর এক মাস হাজতে রেখে দেয়া হয়েছিল বলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন।
উল্লেখ্য, একটি চিট ফান্ড সংস্থার সঙ্গে যোগসূত্র থাকার অভিযোগে সিবিআই তাপস পালকে গ্রেপ্তার করেছিল। দীর্ঘ ১২ মাস তিনি কারাগারে ছিলেন। সেই সময়ই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। ফলে দু বছর আগে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। রাজনীতির ময়দানে তাপস পাল বিভিন্ন সময়ে কুকথার জন্য বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। তিনি বিধায়ক এবং দুবার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। তবে শেষ দিকে রাজনীতি থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নিয়েছিলেন। এদিন দুপুরে রবীন্দ্রসদন থেকে তাপস পালের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছিল কেওড়াতলা মহাশ্মশানে। সেখানে গান স্যালুটের মাধ্যমে শেষ শ,্রদ্ধা জানানো হয়েছে। শেষকৃত্যানুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুরমন্ত্রী ও কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম, মালা রায়, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, সোহম চক্রবর্তীসহ টলিউডের অভিনেতা, অভিনেত্রী, শিল্পী ও কলাকুশলীরা ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর