× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৮ এপ্রিল ২০২০, বুধবার

করোনায় দেশে আরও একজনের মৃত্যু

করোনা আপডেট

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মার্চ ২০২০, শনিবার, ২:২৮

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে কভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে ২ জন মারা গেলেন। এছাড়া নতুন করে আরও ৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২৪ জন।

আজ দুপুর সোয়া ২টায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, নিহতের বয়স ৭৩ বছর।

তিনি আরও বলেন, দেশে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে ৫০ জনকে। এর আগে, গতকাল এই সংখ্যা ছিলো ৪৪।
অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৬ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এছাড়া ১৪ হাজারকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, অনেকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে চায় না। তাদেরকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মাধ্যমে কোয়ারেন্টিনে থাকতে বাধ্য করা হচ্ছে।  

তিনি বলেন, আপনাদের একটি ভালো খবর দিতে চাই, মাত্র একটি জায়গায় সাতটি মেশিন দিয়ে পরীক্ষা করা হলেও এখন আরও আটটি জায়গার পরীক্ষা করা হবে। সেগুলোর জন্য মেশিন আনা হচ্ছে। রাতারাতি সেগুলো স্থাপন করে ফেলা সম্ভব না। এগুলো স্থাপন করার জন্য অনেক জিনিসপত্র লাগে।

হাসপাতালে যারা কর্মরত আছে, আমরা তাদের জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দিয়েছি। এখনও যেগুলো গ্যাপ আছে, সেগুলো দেয়ার চেষ্টা করছি।

জাহিদ মালেক বলেন, আমরা চিন্তা করছি চীন থেকে কিছু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার-নার্স আনার, যারা উহানে কাজ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলে আনা হবে। বাংলাদেশ এখনো অনেক দেশ বিশেষ করে ইউরোপ, ইতালির চেয়ে ভালো আছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, এয়ারপোর্ট ও ল্যান্ডপোর্ট দিয়ে অনেকে আসা-যাওয়া করছেন তা অনেকাংশে বন্ধ হয়েছে। বিদেশ থেকে যারা এসেছেন তাদের লিস্ট আমরা মন্ত্রণালয় থেকে নিয়েছি এবং সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়েছি। মার্চের আগে যারা এসেছেন তাদের দেশে আসার অনেক দিন পার হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন, আমরা বিভিন্ন হাসপাতাল প্রস্তুত রেখেছি। মিরপুরের দিয়াবাড়ী ও উত্তরার তাবলীগ জামাতের ইজতেমা যেখানে হয় সেখানে কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা করতে সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দিয়েছি, তারা ম্যানেজ করবে। যদি কোয়ারেন্টিনে রাখার দরকার হয়। ইতিমধ্যে সব স্বাস্থ্যসেবা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করেছি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক
২১ মার্চ ২০২০, শনিবার, ৩:৫০

আমাদের গুনাহ্ দেখে আল্লাহতায়ালা ভীষণভাবে ভারগ্রস্থ।যতক্ষণ আমরা গুনাহ্গাররা না মরি ততো ক্ষণ পর্যন্ত এই ক্ষোভ থাকবে।আমরা সব বিদায় হব এই পাপিষ্ঠ দুনিয়া থেকে।সবে তো শুরু--------

অন্যান্য খবর