× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৩০ মার্চ ২০২০, সোমবার

করোনা রোগীকে চিকিৎসা দেয়ার প্রতিবাদে উত্তরায় বিক্ষোভ

করোনা আপডেট

অনলাইন ডেস্ক | ২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১১:০৪
সংগৃহীত

রাজধানীর উত্তরায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে ভর্তি ও চিকিৎসা সেবা দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে স্থানীয়রা। রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের বাধার মুখে পড়লে ভাঙচুর, হাতাহাতি ও হট্টগোল সৃষ্টি হয়।

গতকাল রাতে করোনা রোগী ভর্তি ও চিকিৎসা সেবা দেয়ার প্রতিবাদে কয়েকশ’ মানুষ রাস্তায় অবস্থান নিয়ে মিছিল বের করে। পরে মিছিলটি উত্তরা পশ্চিম থানায় অবস্থিত একটি হাসপাতালের সামনে যায়। এ সময় তারা হাসপাতালটির ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করলে হাসপাতালের কর্মীরা তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দা তথা মিছিলকারীদের বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এরপর শুরু হয় হাতাহাতি ও হট্টগোল।

পরে রাত সোয়া ৯টার দিকে ডিএমপি’র উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৫১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ১১ নম্বর সেক্টর কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদকসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে হাসপাতালের ভেতর বৈঠক করেন।
প্রায় আধাঘণ্টা ধরে চলা বৈঠক শেষে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাংবাদিকদের বলেন, আমরা এখানে সেক্টরবাসীরা করোনা ভাইরাসের রোগীর ভর্তি কিংবা চিকিৎসা সেবা নিতে দিবো না। বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনকে অবহিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ডিএমপি’র উত্তরা পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তপন চন্দ্র সাহা জানান, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা করার জন্য সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ৫টি হাসপাতাল অনুমতি নিয়েছিল। এর মধ্যে এই হাসপাতালটি রয়েছে। আমরা হাসপাতাল বন্ধ করতে পারিনা। বিষয়টি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ব্যাপার। তারা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
ABDUL GOFUR MIAH
২৫ মার্চ ২০২০, বুধবার, ৭:০৫

প্রত্যেক মানুষের চিকিৎসার অধিকার,বেচে থাকার অধিকার আছে । চিকিৎসায় বাধা দেয়া অন্যায় ।যেখানে যেখানে করোনার বিশেষ চিকিৎসা হবে তা পাবলিক নোটিশ দিয়ে ,ব্যাপক প্রচার করা হোক ।

ম নাছিরউদ্দীন শাহ
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৭:৩৮

মানুষ আর মানুষ তাকলো কোথায়। মানবতাহীন অসভ্যতা হ্নদয়হীন মানুষ গুলো করোনা ভাইরাস থেকেও নিকষ্ট। এরা মানবতার শক্র আইন শৃংখলা বাহিনী স্হানিয় দের সাথে বৈঠক কিসের এদের গ্রফতার সাথে সাথে শাস্তি দেওয়া উচিৎ ছিল। এই করোনা গজব আজাব যাই বলি সেনা প্রধান মন্ত্রী বড় ছোট কাওকে ছাড়ছে না। প্রতিবাদীরা আল্লাহ না করুক আক্রান্ত হবে না এই গ‍্যারান্টি আছে। রাষ্ট্রের কেও নিরাপদ বলুন?একমাত্র আল্লাহ্ যাহাকে হেফাজত করবেন সেই নিরাপদ। কতজন আক্রান্ত হবেন কতজন মরবেন আগামিতে সারাবিশ্বে করোনার ভয়ংকর চিত্র আলেমুল গাইয়েব মহান আল্লাহ্ ভাল জানেন। আল্লাহর ইচ্ছের বিরুদ্ধে কিছুই করার থাকেনা। চেষ্টা সাবধানতা ঈমানের শাখা। আল্লাহ্ আমাদের বুঝার তৌফিক দিন।

A B M Sarwar
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৬:৪৯

Not in scattered place but in special arrangement area be demarcated for out of locality a) Quarantine b) Isolation c) Final treatment of patient. Central arrangement : Quarantine the peoples instead of different locality of the country but in particular space of accommodations. This may be arranged very quickly at any hilly/out of locality areas ready available like : Parjaton centers, Tea estates , disasters spots( out of locality exist) near char area ( which are lying now vacant). Out of locality like subarna char, saint martin islands, Sunderban, Tea estate of Sylhet & Hill tracks or exploring any suitable area which are out of density of mass population. The above proposed place be demarcated for a) Quarantine b) Isolation c) COVID-19 Medical Hospital for treatment of patient. All above arrangement to be made deputing by our beloved Army management taking help from law and force agencies giving facilities for flying them special Helicopters providing ambulances and proper transports. Divisional and Dist. Like above 2/3 or more as per requirement NB : Scattered arrangement for any of the a) Quarantine b) Isolation c) Treatment of patient will fall us mismanagement, cost effective and tension and threat of spreading of virus & not possible to keep up the epidemic in control. The above proposal be considered beyond the action taken now.

Kazi
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৫:২৩

Any hospital took permission to treatment of covid patients must be deducted for covid. They must stop admitting Regular patients.

Khokon
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১:৩৫

Shame and very shame !! To hearing this demostration my hand is not moving ? How possible if somebody get sick we will through him out ? It's odds ? People are ignorance, arrogance, male eduction, inhumanity that's why people are stealing, no sympathy each other and for the reason we can't established democracy ! What unfortunate we are ??

সানি
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ২:১২

ওয়ার্ড কমিশনারসহ যারাই এই রোগীর চিকিতসা সেবা প্রদানে বাঁধা দিয়েছে বা দেবার চেষ্টা করেছে তারা মানুষতো নয়ই, উপরন্তু তাদের মিরপুরের চিড়িয়াখানায় পাঠিয়ে দেওয়া হোক। এরাই সমাজের সবচেয়ে নিক্বষ্টতম ভাইরাস।

Abdullah
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১:০৮

মানুষ এত বড় অমানুষ হয় কি করে?

Raju
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১:১৮

এটা কাম্য নয়,আপনি বা আপনার পরিবারের কেউ আক্রান্ত হলে আপনি কিভাবে চিকিৎসা পাবেন? আসুন মানুষ(মান হুশ) হই।

ডাঃ মোহাম্মদ মুজাহিদ
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১২:০২

ওরা ওতো মানুষ! বিনা চিকিৎসায় একজন মানুষ মারা যাবে? এ কেমন কথা? দেখেন নাই বিশ্বে মাত্র ৩% মানুষ এই করোনায় মারা গিয়াছে। আর ৯৭% সেরে উঠেছে । চিকিৎসা না পেলে ওরা সেরে উঠলো কি ভাবে? চিকিৎসানা দিলে তো প্রায় সবাই মারা যাবে! এটা অমানবিক। আমরা নিজেরা সরকারের নির্দেশ মানছি না, নিজেরা সতর্ক হচ্ছিনা! একজন অসহায় করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা দিবনা এটা ভাবলেন কোন বিবেক নিয়ে? তা হলেতো সবার আগে স্বাস্থ্য সেবা দান কারীরা বিরত থাকা দরকার? ওরা কেন রিস্ক নিবে? আপনার কারো বাবা মা বা পরিবারের কারো করোনা হলে আপনি কি আশা করেন? সেই বিবেচনা নিয়ে কথা বলুন!

Ahmed
২২ মার্চ ২০২০, রবিবার, ১১:৪৭

This is disgusting. And people should remember “What goes around comes around “ Just wait you filthy creatures..

লিটন
২২ মার্চ ২০২০, রবিবার, ১১:৪১

বাংলাদেশের জনগণ কবরে না যাওয়া পর্যন্ত ভালো হবে না ।

Faruque Ahmed
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১২:৪১

Allah send Ababil to save Caaba and Corona to save humanity. The people who are opposite of humanity, be carefull. প্রতিবাদীকারীরা don't act like that. Help government to do planned activities, this will be wisest and good for you too.......

Faisal
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১২:১৭

My Dear Brothers and sisters, we cannot be selfish and go out of our mind as we all know the govt. hospitals will not be enough to treat huge number of patients that are being affected in reality. We cannot left a affected person on the street and sit like a deaf and dumb. This is not the characteristics of a Muslim. And truly being selfish will be boomerang shortly. so, be patient, ask forgiveness from your Lord and try at least not to harm others if you can not help. May Allah give us patience and intelligence which is in short for this nation for centuries.

Shafi
২২ মার্চ ২০২০, রবিবার, ১০:৪৪

Human attitude like animals..

ওমর
২২ মার্চ ২০২০, রবিবার, ১০:২৫

ঐ নপুংশক প্রতিবাদীকারীদের সবার আগে তুরাগ নদীর তীরে quarantine করুন, এবং এদেরকে প্রশিক্ষনের মাধ্যমে করোনা আক্রান্তদের সেবা প্রদানের জন্য প্রস্তুত করুন।

অন্যান্য খবর