× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ১০ এপ্রিল ২০২০, শুক্রবার

‘ইতালিয়ানরা ঘরে না থাকলে ২০ বছরেও পরিস্থিতি বদলাবে না’

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২৪ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার, ৮:৪৭

ইউরোপের ঐতিহ্যের ধারক ইতালিকে শেষ করে দিচ্ছে করোনা ভাইরাস। প্রতি ২ মিনিটে একজন করে মারা যাচ্ছে দেশটিতে। রোববার ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেন ৭৯৩ জন। আর ইতালির সাবেক ফুটবল স্ট্রাইকার আন্তোনিও কাসানো মনে করেন, জনগন সচেতন না হলে ২০ বছরেও পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে না দেশটিতে। ২০১৮-তে ফুটবল থেকে অবসর নেয়া কাসানো বলেন, ‘এখনো ইতালির রাস্তায় অনেক মানুষ ঘুরে বেড়াচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে ২০ বছর পরও আমাদের পরিস্থিতি এমনই থাকবে।’
করোনায় সবচেয়ে বেশি মারা গেছে ইতালিতে। সরকারি হিসাব মতে সোমবার পর্যন্ত দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৫৪৭৬। করোনার কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রয়েছে ইতালির ফুটবল।
তবে আজ্জুরিদের বর্তমান কোচ রবার্তো মানচিনি আশাবাদী, জুনের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে। তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি সামাল দিতে পারলে জুনে খেলা সম্ভব। আমি উদ্বিগ্ন। অনেকে মানুষ মারা পড়ছে। ভয়ানক ব্যাপার ঘটছে এখানে।’
আজ্জুরিদের ২০০৬ বিশ্বকাপজয়ী কোচ মার্সেলো লিপ্পি বলেন, ‘আমি চাই সিরি আ লীগটা স্বাভাবিকভাবে শেষ হোক। কিন্তু সবকিছু নির্ভর করবে সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর।’ ঐতিহ্যবাহী ক্লাব এসি মিলানের প্রধান নির্বাহী ইভান গাজিদিস বলেন, ‘ফুটবল সঠিক সময়ে ফিরবে মাঠে। এমন পরিস্থিতিতে নয়। হেল্‌থ ও সেইফটি সবার আগে।’ ইতিমধ্যেই সিরি আ লীগে খেলা কয়েকজন ফুটবলার আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। এদের মধ্যে বিদেশি ফুটবলারই বেশি। সবশেষ জুভেন্টাসের আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালার কোভিড-১৯ ধরা পড়েছে। তার ক্লাব সতীর্থ ইতালিয়ান ডিফেন্ডার জর্জো কিয়েলিনি বলেন, ‘আশা করি আমার টেস্ট নেগেটিভ আসবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর