× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৭ জুন ২০২০, রবিবার

চীনের কিটের মান নিয়ে ভারতের বিভিন্ন রাজ্য প্রবল ক্ষুব্ধ

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৩ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:৩৫

চীন থেকে আনা করোনা পরীক্ষার কিটের মান নিয়ে ভারতের বিভিন্ন রাজ্য ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। অনেক রাজ্য আবার বেশি দামে ত্রুটিপূর্ণ কিট ক্রয়ের সমালোচনা করেছে। অবশ্য বিশ্বের নানা দেশ থেকেই চীনের কিটের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। অনেক দেশ অর্ডার বাতিল করেছে। অনেকে আনা কিট ফেরত দিতে চেয়েছে। এই অবস্থায় ভারতে বেশি দাম দিয়ে ক্রয় করা চীনের কিটের গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় ভারত সরকার অস্বস্তিতে পড়েছে রাজ্য সরকারগুলির অভিযোগের ভিত্তিতে ভারতের করোনা মোকাবিলায় নোডাল এজেন্সি আইসিএমআর রাজ্যগুলির কাছ থেকে সব চীনা কিট ফেরত নিয়েছে। বলা হয়েছে, আইসিএমআর-র বিজ্ঞানীরা কিটগুলি পরীক্ষা করে দেখছেন। ফলাফল এলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানা গেছে।
অ্যান্টিবডি পরীক্ষার জন্য ভারত চীন থেকে প্রথমে ১৬ এপ্রিল সাড়ে ৬ লক্ষ অ্যান্টিবডি টেস্ট কিট ও ‘আরএনএ এক্সট্র্যাকশন’ কিট ক্রয় করেছে। অ্যান্টিবডি কিট পাঠিয়েছিল ‘গুয়াংঝৌ ওন্ডফো বায়োটেক’ ও ‘ঝুহাই লিভজন’ নামের দু'টি চীনা সংস্থা। আইসিএমআর সেই কিট রাজ্যগুলিকে দিয়েছিল। এর দু'দিন পরে ফের গুয়াংঝৌ থেকে ৩ লক্ষ অ্যান্টিবডি কিট রাজস্থান ও তামিলনাড়ুর জন্য আনানো হয়েছে। দিল্লিতে চীনা দূতাবাসের মুখপাত্র জি রং জানিয়েছেন, কিট সংক্রান্ত রিপোর্ট তাঁদেরও নজরে পড়েছে। তাঁরা ভারতের সরকারি সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন এবং প্রয়োজনীয় সহায়তা করবেন। এদিকে বিজেপি-শাসিত হরিয়ানা সরকার জানিয়েছে, তারা ১ লক্ষ চীনা কিটের অর্ডার বাতিল করছে। হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ জানিয়েছেন, প্রতিটি চিনা কিটের দাম ৭৮০ রুপি। সেখানে দক্ষিণ কোরিয়ার ‘এসডি বায়োসেন্সর’ ৩৮০ রুপিতে কিট দিচ্ছে। চীনা কিটের দাম নিয়ে কংগ্রেস সরাসরি অভিযোগ তুলেছে। রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলেট বলেছেন, খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে, স্বাস্থ্য মন্ত্রক ও আইসিএমআর যাচাই না-করেই এই সব কিট ক্রয় করেছে। তারা চীনের কিটে পরীক্ষা করবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ও ত্রুটিপূর্ণ কিটের ব্যাপারে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। জানা গিয়েছে, আইসিএমআর ৭০০ রুপির একটু বেশি দামেই চীন থেকে কিট ক্রয় করেছে। অভিযোগ, যে সংস্থার মাধ্যমে এই কিট ক্রয় করা হয়েছে, তারা নিজেদের লাভ রাখতে আইসিএমআর-কে প্রায় দ্বিগুণ দামে কিট বিক্রি করেছে।  একই দামে চীন থেকে কিট কিনেছে কর্নাটক, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ। কিন্তু ছত্তীসগড়ের কংগ্রেস সরকার দক্ষিণ কোরিয়া থেকে যে কিট কিনেছে, তার প্রতিটির দাম পড়েছে মাত্র ৩৩৭ রুপি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর