× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৩ জুন ২০২০, বুধবার
কলকাতা কথকতা 

রুবেল হোসেনের মন্তব্যে কলকাতার বিরাট অনুগামীরা দ্বিধাবিভক্ত

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী,  কলকাতা       | ১০ মে ২০২০, রবিবার, ১০:৪৩

ফেসবুক লাইভে  ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের তিন মহাতারকা তামিম ইকবাল,  মাশরাফি বিন  মুর্তজা এবং রুবেল হোসেন।  এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সর্বকালের অন্যতম সেরা পেসার  রুবেল হোসেনের একটি মন্তব্য ঘিরে ঝড় উঠেছে কলকাতায়।  এই লাইভ অনুষ্ঠানে রুবেল বলেন যে ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে তার সংঘাত দীর্ঘদিনের।  বিরাট যখন ভারতীয় অনূর্ধ্ব উনিশ দলের খেলোয়ার ছিলেন সেই তখন থেকে।  রুবেল বলেন,  তিনিও তখন বাংলাদেশ উনিশ দলের সদস্য  ছিলেন।  বিরাট তখন অনাবশ্যক স্লেজিং করতেন।  বিশ্রি  গালিগালাজ করতেন। রুবেল তার প্রতিবাদ করায় বিরাট একবার তাঁর দিকে তেড়ে আসেন। আম্পায়ারের  হস্তক্ষেপে ব্যাপারটি মিটে যায়।  রুবেল  স্বীকার করেছেন যে বিরাট কোহলি ভারতীয় সিনিয়র দলে আসার পর ব্যাপারটা অনেকটা কমেছে।  কিন্তু কমেনি তাঁদের  সংঘাত।  দুহাজার এগারোর বিশ্বকাপে রুবেলদেরকে পরাজিত করে কাপ যেতেন কোহলিরা। কিন্তু দু হাজার পনেরোতে তিন রানে তিনি কোহলির স্ট্যাম্প ছিটকে দেন।    রুবেল এর এই লাইভের পরেই কলকাতার ক্রিকেট অনুরাগীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।  একদল ক্রিকেট অনুরাগী বলেন,  স্লেজিং ক্রিকেট এর অঙ্গ।  রুবেল এর দ্বারা এত বিচলিত হয়েছিলেন কেন?  অন্য দলটির বক্তব্য,  বিরাট ক্রিকেটার একজন আইকন।  তাঁর স্লেজিং এর ভাষা নির্বাচনে যত্নবান হওয়া প্রয়য়োজন ছিল।  সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় - শোয়েব আখতারের মধ্যেও তো সংঘাত ছিল।  তার জন্যে দুজনকেতো অশোভন হতে হয়নি।  বরং ভারতীয় দল পেসোয়ায় গেলে সেবার নিজের হাতে করে সৌরভ এর জন্য কাবলি চপ্পল নয় আসতেন উপহার হিসেবে।   ফেসবুক দর্শকদের বক্তব্য,  প্রথম সুযোগেই বিরোধ মিটিয়ে নিন বিরাট – রুবেল।  প্রতিষ্ঠিত হোক  ভারত - বাংলাদেশ মৈত্রী।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর