× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৩১ মে ২০২০, রবিবার

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড মৃত্যু ২১, শনাক্ত ১৬০২

করোনা আপডেট

স্টাফ রিপোর্টার | ১৮ মে ২০২০, সোমবার, ২:৪২

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ২১ জন মারা গেছেন। একদিনে এ যাবৎকালের এটাই সর্বোচ্চ মৃতের সংখ্যা। এছাড়া দেশে ২৪ ঘণ্টায় আরো ১হাজার ৬০২ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া যায়।
সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।
তিনি জানান, ৪২টি ল্যাবের মধ্যে ঢাকার মধ্যে ২১টি ও ঢাকার বাইরে ২১টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে নয় হাজার ৯৩৩টি। পরীক্ষা করা হয়েছে নয় হাজার ৭৮৮টি। মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ১ লাখ ৮৫ হাজার ১৯৬টি।
তিনি আরও বলেন, ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২১ জনের।
এদের মধ্যে পুরুষ ১৭ জন, নারী চার জন। মৃত্যু ২১ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১২ জন ও চট্টগ্রাম বিভাগে সাত জন, সিলেটে বিভাগে এক জন, রাজশাহী বিভাগের রয়েছেন ১ জন। ২১ জনের মধ্যে হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের। আর বাসায় ৪ জনের। বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে পাঁচ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আট জন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সের মধ্যে ছয় জন ও ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে রয়েছে দুই জন।
প্রসঙ্গত, গত ৮ই মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। শুরুর দিকে রোগীর সংখ্যা কম থাকলেও এখন সংক্রমণ সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।
গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে চীনের উহানে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। ভাইরাসটি ক্রমে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। চীনের পর ইরান, কোরিয়াসহ বেশকিছু দেশে সংক্রমণ ছড়ালেও সবচেয়ে বেশি করোনা আঘাত হানে ইতালি, স্পেনসহ ইউরোপের দেশগুলোতে।
যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার বলছে, বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন (প্রতিবেদন লেখার সময়) ৩ লাখ ১৬ হাজার ৮৬০ জন মানুষ। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮ লাখ ১৫ হাজার ৭০৭ জন । অন্যদিকে সুস্থ হয়েছেন ১৮ লাখ ৬৩ হাজার ৩৮১ জন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
জাফর আহমেদ
১৮ মে ২০২০, সোমবার, ৪:৪৬

যখন‌ কোন জাতি সিমা লংঘন করে, তখন তাদের জন্য দংশ অনিবার্য হয়ে ওঠে, আর এটা আল্লাহর ওয়াদা, আর আমরা বাংলাদেশের মানুষ সিমা লংঘন কারী জাতি,

Mohiuddin Palash
১৮ মে ২০২০, সোমবার, ৫:০৫

দেশে আবারও দুর্ভিক্ষ দেখা দিতে পারে। আর এ জন্য আমি সরকারকে দোষ দিবো কারন এমন সাধারন ছুটি বা এমন লকডাউন দিয়ে কিছুই হবে না অদক্ষতার পরিচয় হটকারিতা আরে বাবা ভারত বাংলােশ এক না ও খানে মানুষ আইন মানে গণতন্ত্র মানে আমাদের এখানে বরং আমাদের অর্থনীতি দিন দিন ধ্বংস হচ্ছে, খুব শীঘ্রই দেশে দুর্ভিক্ষর আশঙ্কা করছি । উচিত ছিলো পনার বিশ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা। এখন শেষ সময় দ্রুত কিছু দিনের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করুন। এটা ভ্যাকসিনের টিকার মতো কাজ করবে। করোনা আলোছায়া কিছুই থাকবে না। এদেশের জন্য রিয়াল করোনা এন্টিবায়োটিক ভ্যাকসিন হলো জরুরি অবস্থা ঘোষণা।

তপু
১৮ মে ২০২০, সোমবার, ১:৫৭

পিক টাইম কি চলছে?

অন্যান্য খবর