× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৫ জুন ২০২০, শুক্রবার

অভিনেত্রী আজমেরি জামান রেশমা আর নেই

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১১:৩৭

অভিনেত্রী আজমেরি জামান রেশমা আর নেই। মঞ্চ, টেলিভিশন ও রুপালি পর্দার একসময়ের নামী এ অভিনয়শিল্পী বুধবার দুপুরে নীরবেই বিদায় নিলেন। ঐদিন বেলা আড়াইটায় রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে মারা গেছেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৮২। দীর্ঘদিন লোকচক্ষুর অন্তরালে ছিলেন তিনি। এ সময়ে তাকে দেখা যায়নি মঞ্চ, টেলিভিশন কিংবা সিনেমায়, দেখা যায়নি কোনো উৎসব আয়োজনেও। ১৯৬০ সালে রেশমা ভয়েস অব আমেরিকায় ভয়েস আর্টিস্ট, উপস্থাপক ও সংবাদ পাঠক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। সত্তরের দশকে তার ব্যাপক পরিচিতি ঘটে টিভিতে মুনীর চৌধুরী অনূদিত উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের ‘মুখরা রমণী বশীকরণ’ নাটকে মূল চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে।


নাটকটির নির্দেশক ছিলেন বরেণ্য শিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার। অভিনয় করেছেন বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত ‘শেষের কবিতা’, ‘বৃত্ত থেকে বৃত্তে’, ‘সাঁকো পেরিয়ে’, ‘দিন বদলের পালা’সহ অনেক আলোচিত নাটকে। ১৯৬০ সালে সিনেমায় তার আত্মপ্রকাশ ঘটে ‘জি না ভি মুশকিল’ ছবির মধ্য দিয়ে। তার সঙ্গে সে সময় তারকা শিল্পী নাদিম, শাবানা অংশ নেন।

তার অভিনয়ে উল্লেখযোগ্য বাংলা ও উর্দু ছবির মধ্যে রয়েছে ‘ভাওয়াল সন্ন্যাসী’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘নয়ন তারা’, ‘ইন্ধন’, ‘চাঁদ অঊর চাঁদনি’, ‘সূর্য ওঠার আগে’, ‘শেষ উত্তর’ প্রভৃতি। তিনি দীর্ঘদিন মঞ্চে শিল্পনির্দেশকের কাজ করেছেন। ষাটের দশকে যুক্ত ছিলেন মঞ্চ সংগঠন ড্রামা সার্কেলের সঙ্গে। তার জন্ম ঢাকার মুন্সিগঞ্জে। স্বামী জামান আলী খান ছিলেন ১৯৬১ সালে পিটিভির প্রথম প্রযোজক।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর