× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৩০ মে ২০২০, শনিবার

করোনা মোকাবিলায় ২৫ কোটি ডলার দিচ্ছে এআইআইবি

অনলাইন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | ২১ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৫:০০

করোনা ভাইরাসের বিপর্যয় মোকাবিলায় বাংলাদেশের জন্য ২৫ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন দিয়েছে এশীয় অবকাঠামো উন্নয়ন ব্যাংক (এআইআইবি)। এই ঋণে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকও (এডিবি) আর্থিক সহযোগী।

বৃহস্পতিবার এআইআইবির এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনার কারণে বাংলাদেশের দরিদ্র ও ঝুঁকিতে থাকা মানুষ, বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি এবং অপ্রচলতি খাতের যেসব মানুষ কর্মহীন হয়েছে, তাদের সহায়তা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এই ‍ঋণ দেয়া হচ্ছে।

এছাড়া সামাজিক সুরক্ষার আওতা শক্তিশালী করার সঙ্গে রপ্তানিমুখী খাতে কর্মরত নারীদের সহায়তাও দেয়া হবে এই প্রকল্পের আওতায়।

ঘনবসিতপূর্ণ হওয়ায় বাংলাদেশ করোনা ভাইরাসজনিত কোভিড-১৯ সংক্রমণের সর্বোচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। দেশের ১৫ শতাংশ মানুষ এখনও দারিদ্র্যসীমায় বসবাস করে, যাদের মধ্যে একটি অংশের বসবাসের স্থায়ী কোনো ব্যবস্থা নেই এবং জনশক্তির ৮০ ভাগই অপ্রচলিত বিভিন্ন খাতে কাজ করে। আর করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বিশাল এই জনগোষ্ঠির মধ্যে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা একদিকে যেমন কষ্টসাধ্য, অন্যদিকে ব্যয়বহুলও।

এডিবির এক হিসাব অনুযায়ী, মহামারি ব্যাপক আকার ধারণ করলে বাংলাদেশে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা ১৪ লাখ থেকে বেড়ে ৩৭ লাখে পৌঁছাতে পারে।   

এআইআইবির ভাইস প্রেসিডেন্ট (বিনিয়োগ) ডি জে পান্ডিয়ান বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঝুঁকিতে থাকা সদস্য দেশগুলোর পাশে থাকতে এআইআইবি যে বড় ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে, তারই অংশ হিসেবে বাংলাদেশকে এই সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

গত পাঁচ বছর ধরে বাংলাদেশের ৭.৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধির হার ধরে রাখার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে পান্ডিয়ান বলেন, দেশটি যাতে পিছিয়ে না পড়ে এবং উন্নয়নের গতি অব্যাহত রাখতেই আন্তর্জতিক সম্প্রদায়ের এই সম্মিলিত উদ্যোগ।

‘কোভিড-১৯ ক্রাইসিস রিকভারি ফ্যাসিলিটি’র আওতায় বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে এআইআইবি সদস্যদেশগুলোকে যে সহায়তা দিচ্ছে তাতে আর্থিক সহযোগী হয়েছে বিশ্ব ব্যাংক এবং এডিবি। মহামারিতে সদস্যদেশগুলোকে অর্থনৈতিক এবং জনস্বাস্থ্য খাতে জরুরি সহায়তা দিতে এবং দ্রুত সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে প্রাথমিকভাবে এক হাজার কোটি ডলারের ‘কোভিড-১৯ ক্রাইসিস রিকভারি ফ্যাসিলিটি’ তহবিল গঠন করা হয়েছে।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর