× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৪ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার
কলকাতা কথকতা

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে আরও ছ’বছর বোর্ড প্রেসিডেন্ট রাখতে উদ্যোগ, সুপ্রিম কোর্টে মামলা

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা | ২৫ মে ২০২০, সোমবার, ১১:৩১

জুলাই মাসে কার্যকাল শেষ হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সচিব জয় শাহ’র। এরপরই তাঁদের বাধ্যতামূলক কুলিং অফ এ যেতে হবে। ঠিক এই অবস্থায় সৌরভ ও জয়কে আরও ছ বছর বোর্ড সভাপতি ও সচিব পদে রেখে দিতে উদ্যেগী হলেন বোর্ড এর এক শ্রেণীর কর্মকর্তা। বোর্ডের কোষাধাক্ষ অরুণ ধুমাল সুপ্রিম কোর্টে একটি আবেদন জানিয়ে বলেছেন, বোর্ডের এই নিয়মকানুন যাঁরা করেছিলেন তাঁরা ক্রিকেট প্রশাসন সম্পর্কে অভিজ্ঞ ছিলেন না। এত অল্প সময়ের জন্যে কেউ ক্ৰিকেট বোর্ডের সভাপতি অথবা সচিব হিসেবে নিজেদের দায়িত্ব নির্বাহ করতে পারেন না। তাছাড়া করোনার কারণে গত কয়েকমাস বোর্ডের কোন কাজকর্ম হয়নি। তাই, দুজনের জন্যে আর একটি টার্ম চাওয়া হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য বিচারপতি লোধা নিয়ে গঠিত কমিশন নির্ধারিত আইনে ক্রিকেট বোর্ড চলে।
সুপ্রিম কোর্ট মামলাটি গ্রহণ করেছে শুনানি হবে শীঘ্রই। এই মামলার সঙ্গে বোর্ডের পক্ষ থেকে আর একটি বিষয়ে আবেদন জানানো হয়েছে। বর্তমান আইনে আছে কারও বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা থাকলে তিনি বোর্ডের কোন পদে বসতে পারবেন না। সংশোধনটি চেয়ে বোর্ড বলেছে, আইনটি অমন করা হোক কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে এবং সেই অপরাধে তিনি তিনবছর জেল খাটলে তাঁকে বোর্ডের কোন পদে বসানো যাবে না। এই বিষয়টিও সুপ্রিম কোর্ট গ্রহণ করেছে। উল্লেখ্য, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক এবং জয় শাহ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ’র পুত্র।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
বাবুল চৌধুরী এইচ এম
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ৪:২৫

ক্রিকেট এসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (ক্যাব) এর সভাপতি হিসাবে বা ভারতীয় ক্রিকেট টিমের সাবেক অধিনায়ক হিসাবে সৌরভ গাঙ্গুলীর ক্রিকেট প্রশাসনে ভাল অভিজ্ঞতা আছে সে হিসাবে তাকে বি সি সি আই'য়ের প্রেসিডেন্ট হিসাবে আরও সুযোগ দেওয়া যেতে পারে কিন্তু ভারতের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ছেলে জয়েশ শাহকে পুনরায় বি সি সি আই'য়ের সেক্রেটারি বানানোর কোন প্রয়োজন নেই কারন তাকে বি সি সি আই'য়ের সেক্রেটারি মনোনীত করা হয়েছে সম্পুর্ন রাজনৈতিক চেক এন্ড ব্যালেন্স সিস্টেম রক্ষা করতে গিয়ে, প্রায় শতাব্দী প্রাচীন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডকে এখনকার মতো কখনো এতো রাজনীতিকরন করা হয়নি, একমাত্র সৌরভ গাঙ্গুলী ছাড়া সবাই ক্ষমতাসীন বি জে পি'র নেতা! বর্তমান বোর্ড সেক্রেটারি জয়েশ শাহর বিরুদ্ধে প্রচুর আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ সর্বজন বিধিত! আই সি সি পৃথিবীর প্রত্যেকটি মেম্বার দেশের বোর্ডের রাজনীতিকরনের বিপক্ষে থাকে কিন্তু ভারতীয় বোর্ডের রাজনীতিকরনে আই সি সি চোখ কান বন্ধ করে অন্ধ বধিরের ভুমিকা পালন করছে।

অন্যান্য খবর