× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৪ জুলাই ২০২০, শনিবার

ভাড়ার বিনিময়ে শারীরিক সম্পর্ক চান বাড়িওয়ালারা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:২৪

করোনাভাইরাসের কারণে আরোপ করা লকডাউনে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বহু মানুষ। চাকরি নেই, বেতন নেই, ফলে নিম্নআয়ের মানুষজন যেন দিশেহারা। এমন সময় অনেকেই বাড়িভাড়া পরিশোধ করতে পারছেন না। আর বাড়িওয়ালারাও সেই দুর্বলতার সুযোগ নিতে ছাড়ছেন না। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে অনেকেই ভাড়াটের কাছে বাড়িভাড়ার বদলে সেক্স দাবি করছেন। গৃহায়ন বিশেষজ্ঞদের সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে এমন প্রতিবেদন করেছে থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশন।

খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে শতাধিক বৈষম্য-বিরোধী গৃহায়ন গ্রুপের সংগঠন ন্যাশনাল ফেয়ার হাউজিং অ্যালায়েন্স (এনএফএইচএ)-এর করা এক জরিপে উঠে এসেছে, ১৩% ক্ষেত্রেই এই করোনাভাইরাস মহামারির সময়ে যৌন হয়রানির অভিযোগ বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাড়িওয়ালার কাছ থেকে বাড়ি ছাড়ার নোটিশ পাওয়া এক নারী বলছেন, ‘আমি যদি তার সঙ্গে সেক্স না করতাম, তাহলে সে আমাকে বের করে দেবে। একাকী মা হিসেবে আমার কোনো বিকল্প ছিল না। আমি ঘরবাড়ি হারা হতে চাইনি।’

যুক্তরাষ্ট্র ও বৃটেনে বাড়িভাড়ার বদলে সেক্স দাবির বিষয়টি নতুন করে আলোচনার বিষয়বস্তুতে পরিনত হয়েছে এই লকডাউনে।

দুই দেশেই বসবাসের ব্যয় অত্যন্ত বেড়ে গেছে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে। বিভিন্ন দাতব্য সংস্থা বলছে, অনলাইনে এমন বহু বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে যে, যৌন সুবিধার বিনিময়ে ভাড়াবিহীন থাকতে দেওয়া হবে।

করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বজুড়ে কোটি মানুষ তাদের চাকরি হারিয়েছেন। কিংবা আয় কমে গেছে। লকডাউন ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানই বন্ধ হয়ে গেছে। এই পরিস্থিতিতে উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপের অনেক দেশই নাগরিকদের জন্য নগদ সহায়তা, ভাড়া স্থগিত, ভাড়াটিয়া উচ্ছেদের ওপর নিষেধাজ্ঞার মতো নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।

গৃহায়ন সম্পর্কিত বৈষম্য থেকে ভাড়াটিয়াদের রক্ষায় কাজ করে এনএফএইচএ। সংস্থাটির আইনজীবী মরগান উইলিয়ামস বলেন, ‘যেসব মানুষ ভাড়াবাসা থেকে বের হয়ে গেলে ভীষণ বিপদে পড়বেন, বিশেষ করে মহামারির সময়, তাদেরকে অসম্ভব সব সমস্যায় পড়তে হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘এই অসহায়ত্বের সুযোগকেই অনেকে ব্যবহার করছে।’

তবে ভাড়ার বদলে যৌন সুবিধা নিয়ে তেমন কোনো উপাত্ত পাওয়া যায় না। এই ইস্যুতে তেমন একটা সচেতনতাও নেই। এছাড়া এর আইনগত দিকও বেশ অস্পষ্ট। এর ফলে ভিকটিমরাই আইনগতভাবে পতিতাবৃত্তির অভিযোগের মুখে পড়তে পারে। এসবের কারণে অনেক ঘটনাই ভিকটিমরা এড়িয়ে যান। দায়ীরা বিচারের মুখে পড়েন না।

২০১৮ সালে দাতব্য সংস্থা শেল্টার ইংল্যান্ডের করা এক জরিপ থেকে দেখা গেছে, ইংল্যান্ডে প্রায় আড়াই লাখ নারী আগের ৫ বছরে ভাড়া না দিতে পারলে যৌন সুবিধা দেওয়ার প্রস্তাব পেয়েছেন। এই ‘যৌন চাঁদাবাজি’র বিরুদ্ধে সোচ্চার বৃটিশ আইনজীবী ওয়েরা হবহাউজ। তিনি বলেন, এই লকডাউনের সময় চাকরিবাকরি ছাড়া মানুষজনকে যেকোনো মূল্যেই ঘরে থাকতে হবে। তাই এই সময়ে এই ধরণের ঘটনা আরও বাড়বে। তিনি বলেন, ‘কভিড-১৯ এর কারণে যুক্তরাজ্যজুড়ে অনেকেই আর্থিক সমস্যায় পড়েছেন। ফলে সম্ভবত সবচেয়ে খারাপ এই সময়েই অনেককেই ওই ধরণের সমঝোতায় যেতে হবে। অন্যথায় তাদের গৃহহীন হয়ে যেতে হবে।’

এনএফএইচএ’র আইনজীবী উইলিয়ামস বলেন, অনেক নারীই বাড়িওয়ালাদের যৌন নির্যাতনের ব্যাপারে মুখ খুলতে চান না, কারণ তাদের আশঙ্কা হয়তো বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে হবে। এসব বেশি ঘটে যখন নারীরা দারিদ্র্য সহ নানা ধরণের সমস্যার হন। তিনি আরও বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে অভিযোগ দায়ের করে, আর তা নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার কাজ অত্যন্ত কঠিন।

যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা দ্য অ্যাডভোকেটস ফর হিউম্যান রাইটস-এর নারী অধিকার বিষয়ক আইনজীবী ক্যারিন লং বলেন, ভাড়ার বিনিময়ে যৌন সুবিধা দিয়েছেন এমন অনেক নারী ইতিমধ্যেই ঝুঁকিতে আছেন। এদের কেউ কেউ হয়তো যৌন মানবপাচারের শিকার। কেউ আবার আগে বন্দী ছিলেন বা জাতিগত সংখ্যালঘু। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি তারা গোপন রাখেন বা নীরবে সহ্য করতে চান। তারা এই বিষয়টি সরকারি কর্তৃপক্ষকে জানান না, কেননা অতীতে হয়তো এই কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তার অভিজ্ঞতা সুখকর ছিল না।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Faruk Ahmmed
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ১২:১২

এটা পুরোপুরি মিথ্যা সংবাদ । আমি একজন বাংলাদেশী আমেরিকান । তাই আমেরিকার নাগরিক হিসেবে কিছু আইন জানি । আমেরিকায় ভাড়া দিতে না পারলে কোন ভাড়াটিয়াকে বাড়ি ওয়ালা কোন ধরনের হয়রানি করতে পারবেনা । বড় জোর কোর্ট নোটিশ দিতে পারবে ।ভাড়াটিয়ার কথা দুরে থাক কোন রুমমেটকে বাসা থেকে বের করা সম্ভব নয় । তাই এই মিথ্যা সংবাদটি প্রকাশ করা সঠিক হয়নি ।

Taherul Hoque
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ১২:৫১

We are a follower of negativity as a nation. This type of negative news should be avoided.

Mujib
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ১০:৪১

Should not write this type of harmful news. Some house holder may be inspired to doing this.

Jubel hussain
২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ৯:২৭

I’m from uk, this is the 100% fake news

Jamshed Patwari
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ৬:১৬

আমাদের দেশে জঘন্য অপরাধ করেও পার পেয়ে যেতে সক্ষম একটি গোষ্টি ছাড়া এধরনের অপরাধ সংগঠিত হবার সম্ভাবনা কম।

শাহ আশিক
২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ৫:০৯

এ ধরণের সংবাদ পরিবেশন করে দেশের বাড়িওয়ালাদের উস্কিয়ে হচ্ছেনা যৌনতার দিকে আর ভাড়াটিয়াদের বিপদে ফেলে দেয়া হচ্ছে না এমনটা বলা যায় না। যদিও পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তি দেয়া যাবে। তবে যেহেতু এ জাতীয় সংবাদে মানুষের কিছুটা হলেও সমস্যা সৃস্টি করতে পারে তাই নাকরাটা উত্তম ছিলো বলে মনে করি। হাঁ, দেশের ভেতরে এরকম কিছু ঘটলে তা সংবাদ করলে হয়তো যথার্ত হতো।

Simon nobi
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ৩:৪২

#Aftab chw. with due respect, journalism is whatever happening in our society rather not what do we want to hear or see

SJ
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ২:১৫

এসব নিউজ বাংলায় প্রকাশ না করা ভালো । কারন এসব পড়ে বাংলার আভ্যন্তরীণ কিছু লোকেরা অনুরুপ আনুসরন করার চেষ্টা করে থাকতে পারে ।

Mustafa Ahsan
২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ১২:৫৯

একেবারে বাজে নিউজ।ভালো কিছু ছাপান ।আমরা বাংলাদেশিরা প্রতি দুজনকে এবং সন্তান থাকলে তাদেরকে আমেরিকায় $১২০০+১২০০+৬০০ করে তিন হাজার ডলার Stimulus money help করলো টোটাল 3.3 Trillion Dollar সেই সব পজিটিভ খবর আপনারা ছাপেন না ,যত সব Depressing news.....

Taufiqul Islam Pius
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ১২:৩১

আমেরিকাটা বাংলাদেশ নয়; না জেনে সংবাদ ছাপানো 'জিপিএ-পাইপ' সাংবাদিকতার লক্ষ্যন। আমেরিকায় বাড়ীওয়ালাকে (কোন লিজ না থাকলে) টানা ১১ মাস বা লিজ এগ্রিমেন্টের সময়সীমা অবধি কোন টাকা না দিলেও বাড়ী থেকে বের করার কোন ক্ষমতাই বাড়ীওয়ালার নেই বা থাকে না। যাষ্ট ৯১১ কল দিলেই পুলিশ এসে উল্টো বাড়ীওয়ালাকেই গারদে ঢুকাবে। আর এই প্যানডেমিক এর সময়ে তো সিটি মেয়ররাই টাকা না থাকলে বাড়ী ভাড়া না দিতে বলে দিয়েছে। এসব কি ছাপেন?

রাজা uk
২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:৫১

এই সব মিথ্যা সংবাদ

shiblik
২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ১১:৩৩

Very real news, a sign of good journalism that warns people and evokes ethical senses. Hopefully we won't hear this type of stories in Bangladesh.

Aftab Chowdhury
২৬ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ৯:৩৮

এই সব ফালতু খবর না ছাপালেই নয় ?!

অন্যান্য খবর