× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১০ জুলাই ২০২০, শুক্রবার

ভারত-চীন সীমান্ত বিরোধে মধ্যস্থতার প্রস্তাব ট্রাম্পের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৭ মে ২০২০, বুধবার, ৭:১০

ভারত ও চীনের মধ্যে সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্টে অচলাবস্থা বিরাজ করছে। দু’পক্ষই বেশ কয়েকদিন ধরে মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। বাড়ানো হয়েছে সৈন্য সংখ্যা। এর মধ্যে বুধবার চীন বলেছে, সীমান্ত স্থিতিশীল ও নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। শলাপরামর্শ ও আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানে উভয় পক্ষের যথাযথ চ্যানেল রয়েছে। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প এই সমস্যা সমাধানে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়ে টুইট করেছেন। বুধবার টুইটে তিনি বলেছেন, ভারত ও চীনের মধ্যে এই সমস্যা সমাধানে মধ্যস্থতা করতে ইচ্ছুক ও সক্ষম যুক্তরাষ্ট্র। টুইটে তিনি দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান উত্তেজনাকর সীমান্ত বিরোধের উল্লেখ করেছেন।
এসব খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া ও ইন্ডিয়া টুডে।
লাইন অব একচুয়াল কন্ট্রোল (এলএসি) বরাবর কয়েকটি পয়েন্টে ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে বেশ কতদিন ধরে অচলাবস্থা নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশের পর ট্রাম্প এমন মন্তব্য করেছেন। ট্রাম্প বলেছেন, আমরা ভারত ও চীন উভয় দেশকে বলেছি, যুক্তরাষ্ট্র এই উত্তেজনাকর সীমান্ত বিরোধে মধ্যস্থতা করতে ইচ্ছুক এবং সক্ষম। তবে দিল্লি ও বেইজিংকে তিনি কখন এই বার্তা দিয়েছেন তা সুস্পষ্ট করে বলেন নি। উল্লেখ্য, এর আগে পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের কাশ্মীর নিয়ে বিরোধের সময়ও তা মিটিয়ে দিতে স্বেচ্ছায় মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছিলেন ট্রাম্প। কিন্তু তা প্রত্যাখ্যান করে ভারত।
এ মাসের শুরুতে চীনের সেনারা লাদাখে পাঙ্গোন লেকের কাছে ভারতীয় সেনাদের মুখোমুখি হয়। তাদের মধ্যে ঘুষাঘুষি হয়। তবে কোনো গোলাগুলির ঘটনা ঘটে নি । তারপর থেকেই ভারতীয় সেনাবাহিনী ও চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে এলএসি বরাবর। তবে উভয় পক্ষে কি পরিমাণ সেনা সদস্য মোতায়েন রয়েছে এবং তারা কতটা দূরে অবস্থান করছে তা স্পষ্ট করে জানা যাচ্ছে না। আনুষ্ঠানিকভাবে লাদাখ লেকে উত্তেজনার কথা স্বীকার করেছে ভারত। ভারতীয় সেনাদের এলএসি অতিক্রম বা চীনা টহলে বাধা দেয়ার কথা অস্বীকার করেছে দিল্লি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Ruhul Islam
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ৫:৪৮

ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে প্রত্যেক বছর কতজনের অপহরন ? আর কত জনের লাশ ফেরত দেয় ? আর কত জনকে গুলি করে মারে ! যাদের সরকারি ভাষায় গরু চোর বলে সম্ভোধন করা হয় ! আসলেও কি ..,,,,,,স্বাধীন ?????

Mohammad hossain
২৭ মে ২০২০, বুধবার, ৬:২৭

India’s a main Security threats of this region. Also for the democracy in Banglades.

অন্যান্য খবর