× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৪ জুলাই ২০২০, শনিবার

ফারিয়ার দিনকাল

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ৩১ মে ২০২০, রবিবার, ৭:৫৫

জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিন। ২০০৭ সালে ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপ হন তিনি। এরপর শুরু করেন শোবিজ যাত্রা। নাটক আর বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করে জনপ্রিয়তা পান। মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংকের ‘কথা দিলাম’ প্যাকেজের বিজ্ঞাপনচিত্র তার পরিচিতি বাড়িয়ে দেয় ব্যাপকভাবে। বর্তমানে করোনা ভাইরাসে সবার মতো তিনিও ঘরে থাকছেন বলে জানান। করোনার জন্য দীর্ঘ অবসরে সময় কাটছে কি করে? ফারিয়া বলেন, ঘর থেকে বের হইনি। সেই মার্চ মাস থেকেই বাসায় আছি।
মাঝে দু’ একবার বের হয়েছিলাম সুপারশপে যাওয়ার জন্য। আমার আসলে খুব কম গুণ। অনেককেই দেখছি রান্নাবান্না বা বিভিন্ন আয়োজন করছেন ঘরবন্দি অবস্থায় থেকে। সেই তুলনায় আমি তেমন কিছু করিনি। আমার অবসরে বই পড়তে ভালো লাগে। প্রচুর বই পড়ছি। সিনেমা দেখছি। আগে হয়তো একটি দেখতাম এখন চারটা পাঁচটা দেখছি তাছাড়া প্রচুর ঘুমাই আমি। পাশাপাশি আম্মুকে একটু হেল্প করি। যেমন ঈদের আগের দিন পুরো বাড়িটা আমি পরিষ্কার করেছি। এবারের ঈদ কেমন কাটলো? তিনি বলেন, অনেকের তুলনায় অনেক ভালো। কারণ দেশের যা অবস্থা, মানুষের মনের যা অবস্থা সে অনুযায়ী নিরাপদে, আনন্দে ঈদের দিন এসেছে। কিন্তু হঠাৎই গুলশানের একটি হাসপাতালে আগুন লাগলো। আসলে এসব দেখে মেন্টালি স্ট্রং থাকাটা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। আমরা যে সুস্থ আছি ভালো আছি এর জন্য সৃষ্টিকর্তার দরবারে লাখো কোটি শুকরিয়া। ঈদের দিন বাসায় ছিলাম। সবার সঙ্গে সময় কেটেছে। বন্ধু এবং আত্মীয়দের সঙ্গে ভিডিও-অডিও কলে
কথা বলেছি। খোঁজ নিয়েছি। সময় চলে গেছে। ঈদে তার দুটি নাটক প্রচার হয়েছে বলে জানান তিনি। এদিকে গতকাল শেষ হয়েছে লকডাউন। এই পরিস্থিতির মধ্যে শুটিং শুরু হলে আপনি করবেন? এই প্রশ্নের উত্তরে ফারিয়া বলেন, আসলে বাসায় থাকতে থাকতে টায়ার্ড হয়ে গেছি। তাই দুই একটা কাজ করলে খারাপ হতো না। যদি প্রপারলি সব কিছু মেনে সোশ্যাল ডিসটেন্স রেখে কাজ করা যায় তাহলে ভালোই হয় হয়তো। জানি না এমনটা সম্ভব কিনা। রোমান্টিক দৃশ্যের শুটিং করা যাবে না। এক্ষেত্রে কাছাকাছি আসা এবং কাছে এসে কথা বলা এমনটা যদি না হয় তাহলে শুটিং করার চেষ্টা করা যেতে পারে। তবে আমার মনে হয় আরো একটু গ্যাপ দিয়ে শুরু করা উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর