× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৪ জুলাই ২০২০, শনিবার

এশিয়ার সেরার তালিকায় বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২ জুন ২০২০, মঙ্গলবার, ৭:৩২

মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার সেরা স্টেডিয়ামের তালিকায় উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের নাম। সমপ্রতি এশিয়া মহাদেশের ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) তাদের ওয়েবসাইটে কয়েকটি বিখ্যাত স্টেডিয়ামের নাম প্রকাশ করে। সেখানে উঠে এসেছে ঢাকার এই স্টেডিয়াম। মহামারি করোনাভাইরোসে বন্ধ ফুটবল। তবে মাঠের খেলা বন্ধ থাকলেও ফুটবলকে চাঙা রাখতে নিয়মিত আয়োজন রাখছে এএফসি। তারই অংশ হিসেবে দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার সেরা কয়েকটি স্টেডিয়ামের তালিকা প্রকাশ করে সংস্থাটি। সেখানেই উঠে এসেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে দেশের জাতীয় স্টেডিয়ামটির নাম। অনেক স্মরণীয় ও ঘটনার সাক্ষী এই বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম।
ক্রিকেটকে মাথায় রেখে স্টেডিয়ামের যাত্রা শুরু হলেও পরবর্তীতে ফুটবলের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয় স্টেডিয়ামটি। সবচেয়ে বড় আলোচনায় আসে এই স্টেডিয়াম ১৯৭৮ সালে বিশ্ব সেরা বক্সার মোহাম্মদ আলীর জন্য। এই মাঠেই একটি প্রীতি বক্সিং ম্যাচ খেলেছিলেন বিশ্বসেরা এই বক্সার। এছাড়াও ২০০৩, ২০০৯ ও ২০১৮ সালের সাফ গেমস, ২০১০ সালের দক্ষিণ এশিয়ান গেমস আয়োজন করা হয় এখানে। শুধু তাই নয় ২০১১ সালে এই স্টেডিয়ামেই নাইজেরিয়ার সঙ্গে ঐতিহাসিক প্রীতি ম্যাচটি খেলেছিল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। এই মাঠেই ২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম সম্পর্কে ওয়েবসাইটে বিবরণ দিয়েছে এএফসি এভাবে, ‘১৯৫৪ সালে ক্রিকেটকে লক্ষ্য করে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের যাত্রা। তবে সময়ের সাথে দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভেন্যু হিসেবে দাঁড়িয়ে যায় স্টেডিয়ামটি। শুরুর পর থেকে বিভিন্ন সময় এই ভেন্যুটির উন্নতি সাধন করা হয়েছে দেশের ক্রীড়ার উন্নয়নের বিকাশ ঘটাতে। ৩৬ হাজার আসন সমৃদ্ধ এই স্টেডিয়ামটি স্বাগতিক দর্শকদের বিনোদনের সবচেয়ে বড় জায়গা। এখানে বিভিন্ন ক্রীড়া আসর আয়োজন করা হয়েছে, যার মধ্যে ২০০৩ সালের সাফ ফুটবলের আসর দর্শক এবং স্টেডিয়ামটির সবচেয়ে স্মরণীয় গৌরবের মুহূর্ত বলে ধরে নেয়া হয়। যেবার বাংলাদেশ ফুটবল দল ফাইনালে মালদ্বীপকে হারিয়ে শিরোপা নিজের করে নেয়।’ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ছাড়াও এই তালিকায় জায়গা পেয়েছে ভারতের সল্ট লেক স্টেডিয়াম, ইরানের আজাদী স্টেডিয়াম, উজবেকিস্তানের পাখতাকর স্টেডিয়াম এবং তাজিকিস্তানের সেন্ট্রাল রিপাবলিকান স্টেডিয়াম।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
সেলিম আহম্মদ
১ জুন ২০২০, সোমবার, ২:৫৩

good

অন্যান্য খবর