× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার

করোনা যাত্রী মালিক-শ্রমিক আলাদা করে চিনবে না

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ৩ জুন ২০২০, বুধবার, ৮:০৯

বিএনপি বিষোদ্গারের ভাইরাসে আক্রান্ত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় অবস্থিত তার সরকারি বাসভবন থেকে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ মন্তব্য করেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, একটি দল সংক্রমণের শুরু থেকেই একই বক্তব্য দিয়ে আসছে। অনবরত সমালোচনার ভাঙ্গা রেকর্ড বাজিয়ে যাচ্ছে বিএনপি। অন্ধ সমালোচনা, নেতিবাচকতা আর মিথ্যাচারের বৃত্ত থেকে তারা বের হতে পারছে না। প্রাণঘাতী করোনা বদলে দিচ্ছে বিশ্ব, বদলে দিচ্ছে পরিবেশ শিষ্টাচার। কিন্তু এ দলটিকে বদলাতে পারেনি।
তিনি বলেন, তারা নিজেদের মধ্যকার সমন্বয়হীনতা না দেখে অন্যত্র সমন্বয় আছে কিনা সেটা খুঁজে বেড়ায়। নেতিবাচক ও দাায়িত্বহীন রাজনীতির কারণে ইতোমধ্যে তারা রাজনীতির আইসোলেশনে পৌঁছে গেছে।
বিষোদ্গারের ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি ভালো কাজ দেখতে পায় না। তাদের মনে ছড়িয়ে পড়েছে নেতিবাচকতার সংক্রমণ।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম সাহেব বলেছেন, সরকার নাকি কানে তুলো দিয়েছে। আমি বলতে চাই সরকারের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় সক্রিয় আছে। বরং আপনারাই দেখতে পাচ্ছেন না অসহায় কর্মহীন মানুষের কষ্ট। জীবন রক্ষা জীবিকার সমন্বয় দেখতে পারছেন না। সরকারের সক্ষমতা বৃদ্ধির নিরলস প্রয়াস চোখ বন্ধ রাখলে দেখতে পাওয়া যায় না। তিনি বলেন, চোখের সামনে থেকে মর্চে ধরা চশমা সরিয়ে ফেলুন তবেই সরকারের কার্যক্রম দেখতে পাবেন। বিএনপির দৃষ্টিসীমায় অবৈধ ক্ষমতার মসনদ আর দুর্নীতির পাহাড়। তাই তারা সরকারের ইতিবাচক কিছু দেখতে পায় না।
ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশবাসী, জনগণ এ কথা জানেন সোমবার থেকে শর্তসাপেক্ষে সারাদেশে গণপরিবহন চলছে। প্রথম দিনে অধিকাংশ ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মানা হয়েছে। অর্ধেক বা তার চেয়ে কম যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলছে। অনেকের ভাড়া সমন্বয় নিয়ে শঙ্কা ছিল। স্বাস্থ্যবিধি মেনে জনগণের প্রতি মানবিক আচরণ এবং সংকটে ইতিবাচক সাড়া দেয়ায় আমি মালিক সমিতি, শ্রমিক সংগঠন ও সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানাই।
ওবায়দুল কাদের বলেন, পাশাপাশি এটাও মনে করিয়ে দিচ্ছি, অনেকে মনে করছেন যাত্রী সংখ্যা বাড়লে পরিবহনগুলোর অর্ধেক আসন খালি রাখার শর্ত মানবে না। জনগণের এই আশঙ্কা থেকে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের নিজেদের মুক্ত রাখতে হবে। আমি গাড়িতে উঠার আগে, গাড়িতে এবং নামতে প্রতিটি ক্ষেত্রেই স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দুরন্ত মেনে চলার অনুরোধ করছি। আপনারা সচেতন থাকলেই কোভিড সংক্রমণ রোধ সম্ভব হবে বলে আমার বিশ্বাস।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, করোনা যাত্রী, মালিক-শ্রমিক আলাদা করে চিনবে না। ছাড় দেবে না কাউকে। তাই নিজেদের স্বার্থেই সচেতনতা জরুরি। সংক্রমণের বিস্তার রোধ সকলকে মনোবল নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সচেতনতার প্রাচীর নির্মাণ করতে হবে। সচেতনতার প্রাচীর নির্মাণ করতে হবে আপন কর্ম ক্ষেত্রে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Md. Siddiqure Rahman
৬ জুন ২০২০, শনিবার, ৪:৩৯

মাননীয় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব , বিআরটিএ চেয়ারম্যান মহোদয় আপনাদের কাছে সবিনয়ে জানতে চাই। ......................................... মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় বেশি দূরের গন্তব্যের বর্ণনা দিতে চাইনা শুধু আপনার বাসস্থানের সামনের সড়কের বর্ণনা দিলাম। ১. ধানমন্ডি ২৭ থেকে কাকলি বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত দূরত্ব ৬.২০ কিলোমিটার ২.৭২ টাকা হিসেবে ভাড়া হওয়ার কথা ১৭ টাকা (৬০ শতাংশ বৃদ্ধির পর চার্ট অনুযায়ী) কিন্তু নিচ্ছে ৪০ টাকা। (প্রায় আড়াই গুন ভাড়া বেশি নিচ্ছে ) ২. ধানমন্ডি ২৭ থেকে জিয়া কলোনি বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত দূরত্ব ৮.৯ কিলোমিটার ২.৭২ টাকা হিসেবে ভাড়া হওয়ার কথা ২৪ টাকা (৬০ শতাংশ বৃদ্ধির পর চার্ট অনুযায়ী) কিন্তু নিচ্ছে ৬৫ টাকা। (প্রায় তিন গুন ভাড়া বেশি নিচ্ছে ) উপরোক্ত ভাড়াগুলো কাদের অনুমতিতে পরিবহন সন্ত্রাসীরা নিচ্ছে একটু সবিনয়ে জানতে চাই ?

অন্যান্য খবর