× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার

কোম্পানীগঞ্জে স্বপনকে নিয়ে যে আলোচনা

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ জুন ২০২০, রবিবার, ৭:৫০

অধ্যাপক বেলায়েত হোসেন স্বপন। তিনি উচ্চ শিক্ষিত হলেও মাটির মানুষ। ঢাকার প্রথম সারির সফল ব্যবসায়ী। কোম্পানীগঞ্জে তাঁর বাড়ী। ব্যবসায়িক কারণে বসবাস করেন ঢাকার অভিজাত এলাকায়। সাম্প্রতিক সময়ে তাঁকে নিয়ে কোম্পানীগঞ্জে চলছে পজেটিভ সব আলোচনা। তিনি এবার একজন মানবপ্রেমিক হওয়ার গল্পটিই চলছে পাড়া-মহল্লায় মানুষের মুখে মুখে। তাঁকে মানুষ খুব ভালবাসেন; এটার বাস্তবতাটা পাওয়া যাচ্ছে মানুষের আলোচনার মাত্রাটা দেখেই।
সূত্র জানায়, নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের অবহেলিত মানুষের প্রিয়জন বেলায়েত হোসেন স্বপন। এই মানুষটি বিগত কয়েক মাস যাবত বহু হতদরিদ্র মানুষকে আর্থিক সহযোগিতা করেছেন। তিনি এখনো মোবাইল ফোন এবং তাঁর নিজস্ব কিছু মানুষের মাধ্যমে কোম্পানীগঞ্জের সেই চরাঞ্চলের অসহায় মানুষদেরও সহযোগিতা করছেন। তবে এসব সহযোগিতার কথা তিনি গোপন রেখেছেন। সবাই চিরদিন বেঁচে থাকবেন না। কর্ম ভাল করলে সবাই স্মরণ করবেন। এটি তিনি মর্মে মর্মে উপলদ্ধি করেন। তিনি বিগত দুুই যুগ ধরে সমাজসেবায় নিয়োজিত আছেন। কোম্পানীগঞ্জের বেশিরভাগ মানুষ তাঁকে ‘স্বপন ভাই’ নামেই চিনেন। জীবনে অনেক পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। বেলায়েত হোসেন স্বপন বিএনপির রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত। দলের কেন্দ্রীয় অগণিত নেতার সাথে তাঁর চলাফেরা। দলের জন্য তাঁর অবদান ও ত্যাগ অনেক। ওদিকে উপজেলা বিএনপির বৃহৎ একটি অংশের নেতাকর্মীরা বলছেন-বেলায়েত হোসেন স্বপন সৎ, যোগ্য, ন্যায় পরায়ণ এবং দলের জন্য তথা মানুষের জন্য নিবেদিত মানুষ। তিনি যদি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির কখনো মুখ্য দায়িত্বে আসেন, তাহলে দলটিও এখানে হারানো যৌবন ফিরে পাবে। নেতাকর্মীদের চাওয়া-পাওয়াটাও পূরণ হবে। তাছাড়া দলের অধিকাংশ তৃণমূল নেতাকর্মীরা স্বপনকে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে দেখতে চায়। তবে বেলায়েত হোসেন স্বপন বিএনপির কোনো পদের জন্য লবিং করছেন না। তিনি মানুষের সেবা করে যাবেন। তিনি মানুষের কল্যাণে অতীতে কোটি কোটি টাকা ব্যয় করেছেন। এলাকাবাসীর তথ্যমতে, বিগত সময়ে বেলায়েত হোসেন স্বপন অসংখ্য গরিব মেয়ের বিয়ে, চিকিৎসা, লেখাপড়ায়, স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসা এবং সামাজিক সংগঠনে আর্থিক সহযোগিতা করেছেন। তিনি মনে করেন-আল্লাহ রাব্বুল আলামীন তাকে যথেষ্ট সম্মান দান করেছেন। এজন্য আল্লাহর নিকট শোকরিয়া আদায় এবং সবার কাছে দোয়া কামনা করেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর