× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১০ আগস্ট ২০২০, সোমবার

লাদাখে সংঘর্ষ অব্যাহত,  কুড়ি ভারতীয় সেনার মৃত্যু,  চীন হারিয়েছে তেতাল্লিশ সেনা

ভারত

জয়ন্ত চক্রবর্তী | ১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৯:২১

পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকা এখনো উত্তপ্ত।  সোমবার শেষ রাত পর্যন্ত ভারত - চীন সেনা সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছেন একজন কর্নেল সমেত ভারতের কুড়ি জন সেনা।  মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান।  কারণ আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থা সঙ্কটজনক।  চীনা সেনাদের ক্ষেত্রেও সংখ্যাটি বাড়ার সম্ভাবনা প্রচুর।  সংবাদসংস্থা জানাচ্ছে,  গালওয়ান এর আকাশে প্রচুর চীনা আর্মি চপার  দেখা গেছে আহতদের নিয়ে যাওয়ার জন্যে।  ভারত এবং চীন দু’পক্ষই অবশ্য দাবি করেছে যে রক্তাক্ত সংঘর্ষের সময় কোনও বুলেট ব্যবহার হয়নি।  রড,  পাথর এবং ধারালো অস্ত্রের ব্যবহারের ফলেই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।  ভারতকে হানাদার বলে বর্ণনা করে বেজিং বিবৃতি দেয়ার এক ঘণ্টার মধ্যে মঙ্গলবার গভীর রাতে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক একটি বিবৃতি দিয়ে জানায় যে চীনের অভিযোগ সর্বৈব মিথ্যা।  দ্বিপাক্ষিক চুক্তি ভঙ্গ করে চীনই  প্রথম ভারত ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করে।  ভারত যে এই ঘটনা বরদাস্ত করবে না,  বিবৃতিতে তাও জানানো হয়।  মঙ্গলবার গভীর রাতে বেজিং এ চীনের উপ  বিদেশ মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন ভারতের উচ্চপদস্থ দূতাবাস কর্মীরা।  লাদাখ সীমান্তের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রসংঘের সচিব আন্তোনিও গুতারেস।  উল্লেখযোগ্য, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও চীনা প্রধানমন্ত্রী জি জিনপিয়াও এর দু’হাজার আঠার ও ঊনিশের দুটি সামিট এর পর দু’দেশের সীমান্ত সমস্যা একটু স্তিমিত হয়েছিল।  আবার তা ভয়াবহ আকার  নিলো।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Dr, Rahman
১৮ জুন ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১১:১৪

দেখা গেল, অবশেষে ভাঙ্গা চেয়ারের হাতলে কাঁটাতার বেঁধে পিটিয়ে চীন ভারতের ২০ জোয়ানকে হত্যা করেছে এবং সকলেই সম্ভবতঃ নিরস্ত্র ছিলেন; আর চীন হারিয়েছে তাদের তেতাল্লিশ সেনা । যুদধে শত্রু মরার আগে সততের মৃত্যু হয় - এই খবরটি তার প্রমান। এতে আরও প্রমানিত হয় যে, সীমান্ত সমস্যা সমাধানে তির, ধনুক, বন্দুক, গুলির জামানা আপাততঃ শেষ । এখন, কাটা তারের কুরুলই যথেষ্ট যা এর আগে কখনো ব্যবহার হতে দেখিনি ।

shiblik
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ১১:০৭

Good to see that countries are not using firearms and bombs. It would be even better if they use only wooden stick in the future to settle dispute. Arab-Israel, Iraq, Yemen and Afghanistan can learn from this example. America and Russia will be out of "bomb" business soon.

Masum
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৯:৪৫

Manabzamin now an Indian newspaper ? By reading this news one might get this impression.

Badal
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৭:৩০

এই খবরের লেখক কি আমাদের দেশী নাকি ভারতে থেকে আমদানীকৃত ? মনে হয় ভারতীয় কোন পত্রিকা পড়ছি । নিরপেক্ষ খবর আশাকরি ।

Shahab
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৫:৪২

Head line& explain news different why?

আহমেদ
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ২:২৪

বিজেপি মিডিয়ার খবরই আপনাদের কাছে নির্ভরযোগ্য?

অন্যান্য খবর