× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১০ আগস্ট ২০২০, সোমবার
লাদাখ পরিস্থিতি নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠক ডাকলেন মোদী

প্ররোচনা দিলে ভারত উপযুক্ত জবাব দিতে প্রস্তুত

ভারত

পরিতোষ পাল, কলকাতা থেকে | ১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৬:১৮

পূর্ব লাদাখে ভারত-চীন সীমান্তে রক্তাক্ত সংঘর্ষ ও পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছেন। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের এক টুইট বার্তায় জানানো হযেছে, আগামী শুক্রবার বিকেল পাঁচটায় হবে এই বৈঠক। এই ভার্চুয়াল বৈঠকে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রধানরা অংশ নেবেন। লাদাখের গলওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনার সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর ২০ জন সদস্য। সংঘর্ষে আহত চার ভারতীয় জওয়ানের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে সেনা সুত্রে জানানো হয়েছে। ভারতের বিরোধী দলগুলো অবশ্য সীমান্তে কি ঘটেছে তা জানানোর দাবি জানিয়েছে। বুধবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এক সংক্ষিপ্ত ভাষণে বলেছেন, ভারত শান্তি চায়। কিন্তু কেউ প্ররোচনা দিলে যে কোনও পরিস্থিতিতে তার উপযুক্ত জবাব দিতেও ভারত প্রস্তুত।
দেশের সার্বভৌমত্বের প্রশ্নে যে কোনও বোঝাপড়ার প্রশ্ন নেই, সে কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দেশের অখন্ডতা আমাদের কাছে সবার উপরে। তা নিয়ে কোনও সমঝোতা করা হবে না। মোদীর কথায়, সেনা জওয়ানদের বলিদান বৃথা যাবে না। এদিকে বুধবার সকালে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং টুইট করে সংঘর্ষে নিহত ভারতীয সেনাদের প্রতি শোক জ্ঞাপন করে লিখেছেন, গলওয়ানের সংঘর্ষে যে সেনাদের আমরা হারালাম তা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। আমাদের সেনারা অসাধারণ সাহসের পরিচয় দিয়েছেন। নিজেদের কর্তব্যে অবিচল থেকে প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন তাঁরা। সেনাদের সাহস এবং আত্মবলিদান দেশবাসী চিরকাল মনে রাখবে ।মঙ্গলবারের মত বুধবারেও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং সেনাপ্রধানদের সঙ্গে বৈঠকে সর্বশেষ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছেন্। লাদাখ সীমান্তে এখনও উত্তেজনা থাকায় শ্রীনগর-লেহ হাইওয়ে জনসাধারণের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের গাড়ি ছাড়া সব যানবাহনের চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Masum
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ১০:১৩

India is becoming friendless day by day. A few days back Nepal re-drew their border with India. Now this fight with China. Relation with Pakistan is sour since 1947. People of Bangladesh are extremely unhappy and disgruntled with India for it's selfish and unfriendly attitude with Bangladesh. It is our bad luck that we have neighbor like India.

Shamim Ahmed
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৯:২০

I think India will take lesson from recent events. Otherwise, it has to pay heavy price in the days ahead. Dhuty tut gaye.

ভেসেল
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৮:২৭

দাদা সহমর্মিতা প্রকাশ করছি ! যদিও প্যাদানিটা একটু কমই হয়েছে । বাংলাদেশ রৌমারী-পাদুয়া সীমান্তে যে ধোলাইটা দিয়েছিল তার তুলনায় এটা নস্যি ! আজ পর্যন্ত বাংলাদেশই যথার্থ রেসপন্স করেছিল । যা চীন কিংবা পাকিস্তানও পারে নাই । তবে এটা কেবল শুরু । এরপর যেখানেই বাড়াবাড়ি করবেন সেখানেই গণধোলাই খাবেন ! ইভেন নেপালের কাছেও !

Alam
১৭ জুন ২০২০, বুধবার, ৫:৪০

This is not Bangladesh border you guys kiling Bangladeshi people like bird at our border. We can’t do nothing just cry in our heart.so is time for you pay back. That doesn’t mean I am happy for your country’s life lost. Stop killing,every life matter.

অন্যান্য খবর