× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার

বাউফলে সড়কের বেহাল দশা, ভোগান্তি চরমে

এক্সক্লুসিভ

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি | ২০ জুন ২০২০, শনিবার, ৮:২৮

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কেশবপুর ইউনিয়নের ভরিপাশা গ্রামের আলকি নদীর পাড় ঘেঁষে খেয়াঘাট থেকে পূর্বদিকে প্রায় ৩ কিলোমিটার পর্যন্ত সড়কের বেহাল দশা। সড়কটি সংস্কারের অভাবে দীর্ঘদিন ধরে যানবাহন ও জনসাধারণের চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। সড়কটি দিয়ে কেশবপুর ইউনিয়নের মমিনপুর, বাজেমহল, তালতলী ও ভরিপাশা গ্রামের কয়েক হাজার মানুষের নানান প্রয়োজনে প্রতিদিন নুরাইনপুর বন্দর ও উপজেলা সদরের যাতায়াত করতে হচ্ছে। এতে ভোগান্তিসহ প্রতিদিনই ঘটছে ছোট-বড় সব দুর্ঘটনা। ফলে রাস্তাটি এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিবছর স্থানীয়রা  টাকা পয়শা উঠিয়ে নিজেরা কিছু বালু সিমেন্টের বস্তা ফেলে সড়কটি কোনো রকম টিকিয়ে রাখলেও  এ বছর সড়কের অবস্থা আরো বেশি খারাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কোনো কোনো জায়গায় মাত্র দেড় ফুট মাটি রয়েছে। যেখান দিয়ে একটি মোটরসাইকেল নিয়ে যাওয়াটাও কষ্টকর।
ফলে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে স্থানীয়দের। এলাকাবাসীর দাবি, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা রাস্তাটি পুনঃনির্মাণ কিংবা সংস্কারের ব্যাপারে একেবারেই উদাসীন। জনগণের এ ভোগান্তি দেখার যেন কেই নেই। নিরুপায় হয়ে সড়কটি সংস্কারের জন্য অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভোগান্তির কথা তুলে ধরে ষ্ট্যাটাস দিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্ট করছেন।
ভরিপাশা গ্রামের বাসিন্দা ডাক্তার বাড়ির জাহাঙ্গীর হোসেন আক্ষেপ করে বলেন, উন্নয়নের কথা শুনেছি। কিন্তু চোখে দেখিনি। ভরিপাশা গ্রামে উন্নয়নের কোনো হাওয়া যে লাগেনি তা সড়কটির অবস্থা দেখলেই বুঝা যায়। দীর্ঘদিন ধরে আমরা এলাকাবাসী অনেক কষ্ট করে সড়কটি দিয়ে যাতায়াত করছি। আমাদের এই কষ্ট কারো চোখে পড়ে না। অথচ নির্বাচন আসলে নানান প্রতিশ্রুতি দেন জনপ্রতিনিধিরা। ওই প্রতিশ্রুতি পর্যন্তই শেষ। এরপর নির্বাচিত হয়ে গেলে আর জনগণের দুঃখ ও দুর্দশার কথা মনে থাকে না তাঁদের।
কেশবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. মহিউদ্দিন আহম্মেদ লাভলু সাংবাদিকদের বলেন, এলজিইডি’র অধীনে ক্ষুদ্র পিিন সম্পদ প্রকল্পের মাধ্যমে সড়কটি বাস্তবায়নের জন্য অনেক আগেই একটি তালিকা জমা দেয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো খোঁজ-খবর পাচ্ছি না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর